এই দেশের সংসদে দেখানো হল এলিয়েনের মৃতদেহ, বিরাট দাবি বিজ্ঞানীদের! দেখে ‘থ” বিশ্ব

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক: ভিনগ্রহী তথা এলিয়েনদের (Alien) অস্তিত্ব আদৌ আছে কি না সেই বিষয়ে বছরের পর বছর ধরে গবেষণা করে আসছেন বিজ্ঞানীরা। পাশাপাশি, বিশ্বজুড়ে অনেকেই আবার দাবি করেন যে, তাঁরা এলিয়েন এবং UFO (Unidentified Flying Object)-কে প্রত্যক্ষ করেছেন। যদিও, সেই সমস্ত বিষয়ে কোনো স্পষ্ট প্রমাণ পাওয়া যায়নি। তবে, ঠিক এই আবহেই মেক্সিকো (Mexico) এমন একটি দাবি করেছে, যা সারা বিশ্বে আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। শুধু তাই নয়, এবার প্রথমবারের মতো এলিয়েনদের “মৃতদেহ” সামনে এনেছেন বিজ্ঞানীরা।

গত মঙ্গলবার মেক্সিকান সংসদে দু’টি এলিয়েনের মৃতদেহ প্রদর্শন করা হয়। এই দু’টি এলিয়েনের মৃতদেহই ১,০০০ বছরেরও বেশি পুরোনো বলে দাবি করা হয়েছে। তবে, এহেন চাঞ্চল্যকর দাবি এলিয়েনদের উপস্থিতির বিষয়ে বিশ্বে নতুন বিতর্ক শুরু করেছে। বিজ্ঞানীরা দাবি করেছেন যে, পেরুর কুসকো থেকে এলিয়েনদের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এমতাবস্থায়, মেক্সিকান সংসদে একটি অফিসিয়াল প্রোগ্রাম চলাকালীন বিজ্ঞানীরা এই দুই এলিয়েনের মৃতদেহ সমগ্ৰ বিশ্বের কাছে উপস্থাপন করেছেন।

সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, মেক্সিকান সংসদে দু’টি এমন প্রাণীর দেহাবশেষ উপস্থাপন করা হয়েছে, যেগুলিকে সহজ ভাষায় এলিয়েনদের মৃতদেহও বলা যেতে পারে। বিজ্ঞানীরা দাবি করেছেন যে এই দু’টি মৃতদেহ ২০১৭ সালে পেরুর কুসকো থেকে উদ্ধার করা হয়েছিল। মৃতদেহগুলি প্রায় ৭০০ বছর থেকে ১৮০০ বছরের পুরোনো। উভয় এলিয়েনদের হাতেই তিনটি আঙুল এবং লম্বা মাথা ছিল।

আরও পড়ুন: হয়ে যান সতর্ক! মানিব্যাগে কখনোই রাখবেন না এই ৫ টি জিনিস, নাহলেই পড়বেন সঙ্কটে! কি জানাচ্ছে জ্যোতিষশাস্ত্র?

মেক্সিকান ইউফোলজিস্ট জেইম মাউসন ওই দেহাবশেষগুলিকে এলিয়েনদের মৃতদেহ বলে অভিহিত করেছেন। জেইম মাউসন কয়েক দশক ধরে এই ধরণের বিষয় নিয়ে কাজ করছেন। পাশাপাশি, এলিয়েন নিয়ে তার গবেষণা সময়ও বেশ দীর্ঘ। মেক্সিকান সংসদে ভিনগ্রহীদের মৃতদেহ উপস্থাপনের ভিডিওটি ইতিমধ্যেই ভাইরাল হয়েছে। সেখানে দেখা গিয়েছে, দু’টি বাক্সে ওই দুটি মৃতদেহ রাখা হয়েছে। পাশাপাশি, জানানো হয়েছে, এই মৃতদেহগুলি মানুষের থেকে আলাদা।

আরও পড়ুন: iPhone 15 সিরিজেও ISRO-র দাপট! মিলবে বিশেষ সুবিধা, গ্রাহকদের জন্য বড় পদক্ষেপ Apple-এর

সেই সময়ে মেক্সিকান সংসদে আমেরিকার সেফ অ্যারোস্পেসের একজিকিউটিভ ডিরেক্টর ও মার্কিন নৌবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত পাইলট রচান গ্রেভসও উপস্থিত ছিলেন। তাঁরা সমগ্ৰ বিষয়টিকে “বিস্ময়কর” হিসেবে বর্ণনা করেছেন। পাশাপাশি, বিজ্ঞানীদের তরফে দাবি করা হয় যে UFO-র ধ্বংসাবশেষ থেকে এই মৃতদেহগুলি উদ্ধার করা হয়েছে।

তাঁদের দাবি অনুযায়ী, পেরুর কুসকোতে একটি UFO-র দুর্ঘটনা ঘটে। যার ফলে ভিনগ্রহীদের মৃতদেহগুলি বহু শতাব্দী ধরে ধ্বংসস্তূপে চাপা পড়েছিল এবং পরে জীবাশ্মে পরিণত হয়। সেগুলিকে উদ্ধারের পর কাঠের বাক্সে রাখা হয়েছে। পাশাপাশি, বিজ্ঞানীরা রেডিওকার্বন ডেটিং-এর সাহায্যে ওই মৃতদেহগুলির ডিএনএ সংক্রান্ত প্রমাণ বিশ্লেষণ করেছেন। যেখানে মৃতদেহগুলি হাজার বছরেরও বেশি পুরোনো বলে জানা গিয়েছে।

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর