আশাহত ইমরান খান, আরও একবার আমেরিকার জন্য লাভবান হল ভারত

বাংলাহান্ট ডেস্কঃ আরও কাছাকাছি চলে এল ভারত (india) আমেরিকা (america)। এশিয়া মহাদেশের মধ্যে ভারতকে সর্বাধিক শক্তিধর দেশ হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করতে এবার বন্ধু দেশের আরো কাছাকাছি চলে এল আমেরিকা। ২০১৮ সাল থেকে ভারতের মাথায় ঘরতে থাকা এক চিন্তার বোঝা নামিয়ে দিল মার্কিন সরকার।

   

পাকিস্তান (pakistan) নিজেদের ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে পুরনো বন্ধু তুরস্কের (Turkey) থেকে এক শক্তিশালী এবং আধুনিকমানের হেলিকপ্টার T129 হেলিকপ্টার নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। সেইমত ১০ হাজার কোটি টাকার বিনিময়ে এই হেলিকপ্টার তুরস্কের থেকে নেওয়ার চুক্তি করেছিল পাকিস্তান। এই শক্তিশালী হেলিকপ্টার পাকিস্তানের হাতে চলে এলেই, পাকিস্তান আরও বেশি ক্ষমতা সম্পন্ন হওয়ার স্বপ্ন দেখছিল।

এই বিষয়কে কেন্দ্র করে ২০১৮ সাল থেকেই চিন্তায় ছিল ভারত সরকার। তুরস্ককে এই কাজে বাঁধা দিলেও, তা মানতে নারাজ ছিল তুর্কির সরকার। অবশেষে আমেরিকা পাশে দাঁড়াল ভারতের। এই শক্তিশালী T129 হেলিকপ্টার তৈরিতে মার্কিন ইঞ্জিনের প্রয়োজন হয়। পাকিস্তান যাতে T129 হেলিকপ্টার হাতে না পায়, সেজন্য আমেরিকা থেকে ইঞ্জিন দিতে অস্বীকার করে মার্কিন সরকার।

এই বিষয়টা শুধু মার্কিন সংবাদ মাধ্যম নয়, এমনকি পাকিস্তান সংবাদ ‘ডন’থেকে জানা যায়- ‘তুরস্ক এবং পাকিস্তানের হেলিকপ্টার চুক্তি রদ করে দিয়েছে আমেরিকা। স্পষ্ট ভাষায় মার্কিন সরকার জানিয়ে দিয়েছে- পাকিস্তানকে যদি এই হেলিকপ্টার দেওয়া হয়, তাহলে প্রয়োজনীয় ইঞ্জিন দেবে না আমেরিকা’।

এই ঘটনায় পাকিস্তান এবং তুরস্ক দুই দেশই আশাহত হয়ে পড়ে। একে তো পাকিস্তানের থেকে হেলিকপ্টার বাবদ ১০ হাজার কোটি টাকা পাওয়ার কথা ছিল তুরস্কের, তা আর কোনভাবেই পাওয়া সম্ভব নয় তুর্কি সরকারের। আর অন্যদিকে, এই শক্তিশালী হেলিকপ্টার ঠিক কখন এবং কিভাবে ভারতের বিরুদ্ধে ব্যবহার করবে পাকিস্তান, তার একটা পরিকল্পনাও করে রেখেছিল ইমরান সরকার। যা সম্পূর্ণটাই ভেস্তে যায়। যার ফলে আরও দুর্বল হয়ে পড়ে পাকিস্তানী বায়ুসেনাবাহিনী।

সম্পর্কিত খবর