এক মাছেই ৭০ লাখ! এ যেন লটারি লাগল মৎস্যজীবীর, খবর শুনে হতবাক সবাই

   

বাংলাহান্ট ডেস্ক : লটারি টিকিট কেটে অনেকেরই রাতারাতি ভাগ্য বদল হতে শোনা যায়। কিন্তু কখনো শুনেছেন একটি মাছ ধরে কেউ রাতারাতি কোটিপতি হয়ে গেছেন? সম্প্রতি এমনটাই ঘটেছে পাকিস্তানের এক মৎস্যজীবির সাথে। পাকিস্তানের (Pakistan) করাচি শহরের এই মৎস্য ব্যবসায়ী একটি মাছ বিক্রি করে হয়ে গেলেন  কোটি টাকার মালিক।

ইব্রাহিম হায়দারি গ্রামের বাসিন্দা হাজি বালুচ নামের এই মৎসজীবী। বালুচ ও তার সহকর্মীরা একটি বিরল প্রজাতির মাছ ধরেন গত সোমবার। এই মৎস্যজীবী আরব সাগর থেকে সোমবার গোল্ডেন ফিশ বা “সোওয়া” নামে একটি বিরল মাছ ধরেছিলেন। এই মাছটি খুবই অমূল্য ও দুর্লভ। এই মাছের পেটে এমন কিছু উপাদান থাকে যেগুলির ঔষধি বৈশিষ্ট্য দুর্দান্ত।

আরোও পড়ুন : ‘মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পর ওঁ বদলে গেছে, আমাকে প্রয়োজন নেই’, মমতাকে নিয়ে যা বলেছিলেন সাহারাশ্রী

পাকিস্তান ফিশারম্যান ফোক ফোরামের মোবারক খান জানিয়েছেন, গোটা মাছটি শুক্রবার করাচি মৎস্যবন্দরে বিক্রি হয়েছে প্রায় ৭০ লাখ টাকায়। এই মাছের পেট থেকে সুতোর মতো যে পদার্থ পাওয়া যায় সেগুলি অস্ত্রপচারের কাজে লাগে। এই ধরনের মাছের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে পূর্ব এশিয়ার দেশগুলিতে। এই মাছগুলি সাধারণত ২০ থেকে ৪০ কিলো ওজনের হয়ে থাকে।

sowa fish

এই মাছ দেড় মিটার পর্যন্ত লম্বায় হতে পারে। সাংস্কৃতিক ও ঐতিহ্যগতভাবেও এই মাছের বেশ তাৎপর্য রয়েছে। বালুচ জানিয়েছেন, আমরা মাছ ধরছিলাম করাচির খোলা সমুদ্রে, হঠাৎ আমরা একটি সোনালি মাছ দেখতে পাই। এটি সম্পূর্ণভাবে অপ্রত্যাশিত ছিল আমাদের কাছে। এই টাকা আমি আমার সাত সহকর্মীর সাথে ভাগ করে নেব।

 

Avatar
Soumita

আমি সৌমিতা। বিগত ৩ বছর ধরে কর্মরত ডিজিটাল সংবাদমাধ্যমে। রাজনীতি থেকে শুরু করে ভ্রমণ, ভাইরাল তথ্য থেকে শুরু করে বিনোদন, পাঠকের কাছে নির্ভুল খবর পৌঁছে দেওয়াই আমার একমাত্র লক্ষ্য।

সম্পর্কিত খবর