১০০ কোটির চাকরি হারিয়েও পড়েননি ভেঙে! ফের শুরু করেছেন নতুন কোম্পানি, অবাক করবে পরাগের কাহিনি

বাংলা হান্ট ডেস্ক: আমাদের দেশে (India) যাঁরা IIT (Indian Institute of Technology) থেকে পড়াশোনা করেন তাঁদের কেরিয়ার নিয়ে রীতিমতো আর কোনো চিন্তা থাকে না। ভালো কোম্পানিতে চাকরির সুযোগ থেকে শুরু করে ভালো বেতন সবকিছুই পাওয়া সম্ভব হয়। কিন্তু, এটাও বাস্তব যে IIT-এর মতো প্রতিষ্ঠান থেকে শিক্ষালাভ করে অনেকেই ভালো চাকরি ছেড়ে ব্যবসা করার ঝুঁকি নিয়ে দারুণ সাফল্য অর্জন করেছেন। এর মধ্যে ফ্লিপকার্টের (Flipkart) কো-ফাউন্ডার শচীন বানসাল এবং বিনি বানসাল, ভবিশ আগরওয়াল সহ একাধিক নাম রয়েছে। যাঁরা ভারতীয় স্টার্টআপ ইকোসিস্টেমে একটি বড় অবস্থান অর্জন করেছেন।

   

তবে, বর্তমান প্রতিবেদনে আজ আমরা আপনাদের কাছে এমন একজন তরুণ উদ্যোক্তার সাফল্যের বিষয়ে জানাবো যাঁর কাহিনিটি অন্যদের থেকে আলাদা। ওই যুবককে চাকরিচ্যুত করা হয়। শুধু তাই নয়, ১০০ কোটি টাকার বেতনে চাকরি হারানোর পরেও হাল ছাড়েননি এই যুবক। এখন ওই তরুণ উদ্যোক্তা একটি নতুন স্টার্টআপ নিয়ে কাজ করছেন।

মূলত, আমরা আপনাদের কাছে টুইটারের প্রাক্তন সিইও পরাগ আগরওয়ালের কথা বলছি। যিনি ২০২২ সালে টুইটারের CEO পদ থেকে পদত্যাগ করেছিলেন এবং এখন আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স সম্পর্কিত একটি নতুন স্টার্টআপে কাজ করছেন। সবথেকে উল্লেখযোগ্য বিষয় হল পরাগ আগরওয়াল ইতিমধ্যেই এর জন্য ২৫০ কোটি টাকার ফান্ডিং সংগ্রহ করেছেন।

হারিয়েছেন ১০০ কোটি টাকার চাকরি: জানিয়ে রাখি যে, ২০২২ সালে, বিশ্বের অন্যতম শ্রেষ্ঠ ধনকুবের ইলন মাস্ক টুইটার (এখন X) অধিগ্রহণ করেন। এরপর খরচ কমানোর নামে হাজার হাজার কর্মচারীকে চাকরিচ্যুত করা হয়। তাঁদের মধ্যে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের আধিকারিকরাও অন্তর্ভুক্ত ছিলেন। সেই সময়ে CEO-র দায়িত্ব সামলাচ্ছিলেন পরাগ আগরওয়াল। এদিকে, ইলন মাস্কের এই পদক্ষেপ ব্যাপকভাবে সমালোচিত হয়েছিল। মাস্ক সিনিয়র কর্মকর্তাদের মোটা অঙ্কের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিলেও পরে তা প্রত্যাখ্যান করেন। যার পরিপ্রেক্ষিতে বিষয়টি পৌঁছে যায় আদালত পর্যন্ত।

Parag did not collapse even after losing a 100 crore job

পরাগ আগরওয়াল নতুন AI স্টার্টআপের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন: সাধারণত, বড় বেতনের প্যাকেজ নিয়ে চাকরি হারানোর পরে, অনেকেই একটি নতুন চাকরির খোঁজে অবিরাম চেষ্টা চালিয়ে যান। কিন্তু, পরাগ আগরওয়াল তা না করে একটি নতুন স্টার্টআপ নিয়ে কাজ শুরু করেন। বিদেশি মিডিয়া রিপোর্ট অনুসারে, পরাগ আগরওয়াল একটি AI স্টার্টআপে কাজ করছেন এবং এর জন্য তিনি প্রায় ২৫০ কোটি টাকার ফান্ডিং সংগ্রহ করেছেন।

আরও পড়ুন: শামি থেকে শুরু করে চাহাল! T20 বিশ্বকাপে “চান্স” পাবেন না ভারতের এই ৬ তারকা, দেখুন তালিকা

এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখি যে, মূলত আজমীরের বাসিন্দা, পরাগ আগরওয়ালের বাবা ছিলেন ভারতীয় পরমাণু শক্তি বিভাগের একজন সিনিয়র অফিসার এবং তাঁর মা একজন অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপিকা। পরাগ আগরওয়াল IIT-র পরীক্ষা পাশ করার পর ২০০৫ সালে IIT বম্বে থেকে স্নাতক সম্পন্ন করেন। এরপর স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কম্পিউটার সায়েন্সে পিএইচডি করতে আমেরিকা যান।

আরও পড়ুন: বড় সিদ্ধান্ত! আর আধুনিক গানের অনুষ্ঠান করবেন না কবীর সুমন, কি এমন হল গায়কের?

এদিকে, আমেরিকায় পড়াশোনা শেষ করার পর পরাগ আগরওয়াল তাঁর পেশাগত জীবন শুরু করেন। শুরুর দিকে, পরাগ আগরওয়াল মাইক্রোসফ্ট রিসার্চ এবং ইয়াহুতে ইন্টার্নশিপ করেছিলেন। প্রায় ৬ বছর টুইটারে কাজ করার পর যখন তিনি চিফ টেকনোলজি অফিসার হিসেবে নিযুক্ত হন তখনই তাঁর কর্মজীবনে টার্নিং পয়েন্ট আসে।

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর