প্রাইমারি TET নিয়ে বিরাট আপডেট! কি জানাচ্ছে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ?

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ আর মাত্র হাতে গোনা কয়েকটা দিন। আগামী ১০ ডিসেম্বর আয়োজিত হতে চলেছে ২০২৩ সালের প্রাথমিকের টেট। গত বছরের মত এবারও ডিসেম্বর মাসেই প্রাথমিকের টেটের (Primary TET Exam) আয়োজন করা হয়েছে। এ বছর আঁটোসাঁটো নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে নেওয়া হবে টেট পরীক্ষা। চলছে জোর তোড়জোড়। এরই মধ্যে পরীক্ষার অ্যাডমিট কার্ড ডাউনলোডের তারিখ ঘোষণা করল পশ্চিমবঙ্গ প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ।

কবে পাবেন অ্যাডমিট কার্ড?

   

প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ জানিয়েছ ডিসেম্বরের শুরু থেকেই TET এর অ্যাডমিট কার্ড পাওয়া যাবে। প্রার্থীরা আজ অর্থাৎ ২ রা ডিসেম্বর থেকে প্রাথমিক টেটের জন্য নিজেদের অ্যাডমিট কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন।

আরও পড়ুন: বিমানে চেপে তড়িঘড়ি হায়দরাবাদ ছুটলেন অভিষেক! হঠাৎ হল টা কি নেতার?

কিভাবে ডাউনলোড করবেন প্রাইমারি টেটের অ্যাডমিট (primary tet admit card)?

1. টেট অ্যাডমিট ডাউনলোড করতে, প্রার্থীদের বোর্ডের ওয়েবসাইট wbbpeonline.com বা www.wbbprimaryeducation.org-এ যেতে হবে।

2. ওয়েবসাইটের হোমপেজে Primary Tet 2023 অপশন দেখা যাবে। সেখানে ক্লিক কবলে অ্যাডমিট ডাউনলোড লিঙ্ক আসবে।

3. এরপর প্রয়োজনীয় বিবরণ দিয়ে লগ ইন করলে, স্ক্রিনে অ্যাডমিট কার্ড ডাউনলোডের লিঙ্ক আসবে।

4. সেই লিঙ্কে ক্লিক করে সহজেই অ্যাডমিট কার্ড ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

নিয়মে কড়াকড়ি

গত বছর টেটে বায়োমেট্রিক নিয়ে বহু অভিযোগ সামনে এসেছিল। তবে এবার সেই খামতি পূরণ করতে চাইছে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ (West Bengal Board of Primary Education)। জানা যাচ্ছে এবার পরীক্ষা কেন্দ্রের ভিতরে আর লাইন দিয়ে বায়োমেট্রিক ছাপ দিতে হবে না পরীক্ষার্থীদের। এর বদলে তারা যেখানে বসে থাকবেন সেখানেই বায়োমেট্রিক নেওয়া হবে। পর্ষদ তরফে জানানো হয়েছে, গত বছরের মত এবছরও প্রাথমিকের টেট পরীক্ষায় সব ধরনের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

tet

পর্ষদ সভাপতি গৌতম পাল জানিয়েছেন পরীক্ষা হলে জলের বোতল নিয়ে যেতে পারবেন না পরীক্ষার্থীরা। তার বদলে তাদের জলের পাউচ দেওয়া হবে।
পাশাপাশি পরীক্ষার্থীদের “ফিঙ্গার প্রিন্ট” ব্যবহার করার বিষয়টি নিয়েও ভাবনা-চিন্তা চলছে। যদিও এই বিষয়ে এখনও পর্যন্ত কোনও সিদ্ধান্ত পর্ষদ তরফে নেওয়া হয়নি।

গত বছরের মত এবারও থাকছে সিসিটিভি। প্রত্যেকটি পরীক্ষা কেন্দ্রে পরীক্ষার্থীদের ঢোকা ও বেরোনোর জায়গায় সিসিটিভি বাধ্যতামূলক বলে জানিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। ২০২২ এর তুলনায় এবছর আবেদনকারীদের সংখ্যা বিরাট কমে গিয়েছে। কারণ সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে এবার শুধুমাত্র D.El.Ed বা D.Ed ডিগ্রিধারীরাই পরীক্ষায় অংশ নেবেন।