টাইমলাইনভারত

লাভ জিহাদে ফাঁসিয়ে ৯টি হিন্দু মেয়েকে ধর্ষণ করেছিল শাকিল, অবশেষে তাঁকে এনকাউন্টারে খতম করল যোগীর পুলিশ

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে উত্তর প্রদেশের মেরঠে শাকিল নামের এক কুখ্যাত অপরাধীকে এনকাউন্টারে খতম করে যোগীর পুলিশ। লুঠপাট, ডাকাতি, তোলাবাজির সাথে সাথে পল্লবপুরম এলাকায় লাভ জিহাদও চালাত শাকিল। শাকিল আট যুবতী সমেত এক নিরীহ বাচ্চার জীবন নষ্ট করেছিল। এই তথ্য শাকিলের মোবাইল থেকেই পায় পুলিশ। শাকিল নিজের একটি গ্যাং চালিয়ে এরকম অপরাধ করত।

কুখ্যাত অপরাধী শাকিলের বড়সড় নেটওয়ার্ক ছিল পল্লবপুরম এলাকায়। শাকিল পেশায় বাইক মিস্ত্রী। ওর দোকানের পাশে এক সিকিউরিটি গার্ডের স্ত্রীর সাথে অবৈধ সম্পর্ক ছিল ওর। শাকিল শুধু ওই সিকিউরিটি গার্ডের স্ত্রীরই না, তাঁর নিরীহ বাচ্চা মেয়ের জীবনও নষ্ট করেছিল। শাকিল সিকিউরিটি গার্ডের পরিবার ধ্বংস করে দিয়েছিল। এই তথ্য গার্ড আর তাঁর স্ত্রী পুলিশকে জানায়।

শুধু এটাই না, শাকিল এরকম ঘৃণ্য অপরাধ পল্লবপুরম এলাকার আরও তিনটি হিন্দু পরিবারের মেয়ে বিয়ে করে করেছিল। শাকিলের বিরুদ্ধে ওই হিন্দু মেয়েদের ধর্ম পরিবর্তন করার অভিযোগও উঠেছিল। এছাড়াও শাকিল আরও পাঁচটি মেয়েকে ধর্ষণ করেছিল। ফোনে তাঁদের উত্তক্ত করে, তাঁদের ধর্ষণ করেছিল শাকিল।

পুলিশ শাকিলের মোবাইল থেকে সমস্ত তথ্য বের করেছিল। শাকিলের কাছে আটটি সিম পাওয়া যায়। পুলিশ জানায়, শাকিল আটটি হিন্দু মেয়কে ধর্ষণ করেছিল। শাকিলের এই ঘৃণ্য অপরাধের কথা সামনে আসার পরেই পুলিশ তাঁকে খুঁজছিল। শেষে তাঁকে খতম করে এনকাউন্টার করে।  পুলিশের এনকাউন্টারে শুধু শাকিলই না, তাঁর এক কুখ্যাত সঙ্গি ভুরাও খতম হয়। পোস্টমর্টেম রিপোর্টে শাকিলের শরীরে তিনটি ও তাঁর সঙ্গি ভুরার শরীরে দুটি গুলি পাওয়া যায়।

বৃহস্পতিবার রাতে পুলিশের এনকাউন্টারে খতম হওয়া গুলফাম (ভুরা) এর পরিবার পুলিশের বিরুদ্ধে ভুরাকে ঘর থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে তাঁকে এনকাউন্টার করে মারার অভিযোগ আনে। শনিবার সকালে ভুরার মৃতদেহ দেখে এলাকার লোকজন বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে এলাকায় বিশাল পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করা হয়। আপনাদের জানিয়ে রাখি, উত্তর প্রদেশ পুলিশ গুলফাম (ভুরা) এর মাথার দাম ২৫ হাজার টাকা, আর শাকিল আনসারি এর মাথার দাম ১ লক্ষ টাকা রেখেছিল।

 

Leave a Reply

Close
Close