স্কুলের ১৫ কিমির মধ্যে না থাকলেই চাকরি যাবে শিক্ষকদের! ঘোষণা সামনে আসতেই শোরগোল রাজ্যে

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ শিক্ষকের চাকুরী (Teacher Job) নিয়ে কতই না কাড়াকাড়ি! বহু অপেক্ষার পর পরীক্ষায় উতরে অনেকের কপালে জোটে একখান চাকরি। আর সেই চাকরি পেয়েও নাকি শান্তি নেই। সদ্য চাকরি পাওয়া হবু শিক্ষকদের খুশি তো দূর উল্টে ভয়ে হুমকিতে কাটছে তাদের সময়। নিয়োগের আগেই রীতিমতো চাকরি হারানোর হুমকিতে রীতিমতো জবুথবু অবস্থা ভাবী শিক্ষকদের।

কারণ কী?

   

সম্প্রতি শিক্ষা দফতরের অতিরিক্ত মুখ্যসচিবের কথাতেই এই হাল। তার আজব হুমকি স্কুলের ১৫ কিলোমিটারের মধ্যে না থাকলে চাকরি খোয়াবেন প্রশিক্ষণরত হবু শিক্ষকরা। আর এই হুমকিতেই চিন্তার ভাঁজ কপালে পড়েছে তাদের।

কোথায় এরম আজব নিয়ম? কেন দেওয়া হচ্ছে হুমকি?

জানিয়ে রাখি, বিহারের (Bihar) শিক্ষা দফতরের অতিরিক্ত মুখ্যমন্ত্রী কে কে পাঠকের সাফ নিদান কর্মরত স্কুলের ১৫ কিলোমিটারের মধ্যেই সব কাজ করতে হবে শিক্ষক-শিক্ষিকাদের। সম্প্রতি এবার যারা BPSC-তে নির্বাচিত হয়েছে নিয়ে এমনই নিদান দিয়েছেন কে কে পাঠক।

পাঠকের কথায়, গ্রামের স্কুলে শিক্ষক-শিক্ষিকাদের নিয়োগ হয়েছে। তাই তাদের সবসময় গ্রামের স্কুলের ১৫ কিলোমিটারের মধ্যেই থাকতে হবে। এই নিয়ম না মানলেই চাকরি চলে যাবে। এই নিদান আসতেই আকাশ থেকে পড়েছেন শিক্ষক-শিক্ষিকারা। শুরু হয়েছে জোর বিতর্ক।

teacher

আরও পড়ুন: শাহী সভার আগেই বাড়ি বাড়ি চিঠি পাঠাল অভিষেক, কী লেখা তাতে? জানলে মাথা ঘুরে যাবে

প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার ডুমরার শিক্ষক প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট (DIET)-এ যান বিহারের শিক্ষা দফতরের অতিরিক্ত মুখ্যমন্ত্রী কে কে পাঠক। সেখানে বিহার পাবলিক সার্ভিস কমিশনে শিক্ষক-শিক্ষিকা পদে নির্বাচিত প্রার্থীদের প্রশিক্ষন হচ্ছে। সেখানে গিয়েই প্রশিক্ষণরত শিক্ষক-শিক্ষিকাদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে চাকরি খোয়ানোর নিদান দেন কে কে পাঠক। যদিও নিজের মন্তব্যের স্বপক্ষে যুক্তি দিয়ে তিনি বলেন, গ্রামে থেকে শিশুদের পঠনপাঠনের দায়িত্ব সামলালে শরীর-মন সবই ভালো থাকবে। শিশু ও গ্রামের মানুষদের সঙ্গেও ভালো সম্পর্ক গড়ে উঠবে।