‘১৫ বছর আগের প্রেমকেও…’, পরম-পিয়া ট্রোল্ড হতেই নেটিজেনদের ধুয়ে দিলেন স্বস্তিকা

বাংলা হান্ট ডেস্ক : পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ের (Parambrata Chattopadhyay) সঙ্গে পিয়া চক্রবর্তীর (Piya Chakrabarty) বিয়ে হওয়ার পর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে তাঁদেরকে নিয়ে চর্চার শেষ নেই। লোকেরা তাঁদের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে সমালোচনা করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় তুলেছে। এবারে শুধু তাঁদের বিয়ে নিয়ে চর্চা নয়, তাঁদের অতীতকে নিয়েও টানা হ্যাঁচড়া করা হয়েছে।

   

আর এবার ১৫ বছর আগের প্রেম নিয়ে মুখ খুললেন স্বস্তিকা মুখার্জি (Swastika Mukherjee)। তিনি বলেন, ‘হ্যাঁ আমি এবং পরমব্রত একসময় সম্পর্কে ছিলাম। কিন্তু সেটা ১৫ বছর আগের ঘটনা। সেটিকে নিয়ে এখন চর্চা করার মানে কি? আর তার জন্য আমাকে ট্রল করার কোনও মানেই হয় না। ১৫ বছরে যদি বিয়ে হত তাহলে এত দিনে বাচ্চা হয়ে যেত। আর সেই সন্তান স্কুলে পড়তো। একটা মানুষ এতদিন পর বিয়ে করেছে, তার পুরোনো সম্পর্ককে নিয়ে চর্চা করার কোনো মানে নেই’।

শুধু এইটুকুই নয়, সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রলিং হওয়া ঘটনা নিয়ে তিনি বেশ কয়েকটি কথা তুলে ধরেছেন। তিনি বলেছেন অভিনেতাদের সবসময় খারাপ বলা, তাদের নিয়ে ভুয়ো খবর ছড়ানো, এগুলো যেন এখন সাধারণ নিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে বিশেষ করে এইসব ক্ষেত্রে অভিনেত্রীদের বেশি টার্গেট করা হয়ে থাকে। যেমন আপনারা আমাকেই ধরুন আমি সব থেকে ট্রোলড তারকাদের মধ্যে একজন। পরমব্রত ও পিয়ার বিয়ে হয়েছে, তাতে সব দিক দিয়ে পিয়াকে কেন লোকে নানান কথা বলছে? পিয়া তো অনুপমের দ্বিতীয় বউ। তাহলে, কেন অনুপম (Anupam Roy) কে কিছু বলা হচ্ছে না? তাই কারো ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে কিছু বলার আগে ভালোভাবে সেটা নিয়ে রিসার্চ করা উচিত।

আরও পড়ুন : এবার অন্যরকম প্রশ্নপত্র! মাধ্যমিক পরীক্ষা নিয়ে বড় আপডেট, কড়া সিদ্ধান্ত নিল পর্ষদ

স্বস্তিকা মুখার্জি, সোশ্যাল মিডিয়াকে ‘পাড়ার জেঠিমা, কাকিমাদের’ সঙ্গে তুলনা করেছেন। তিনি বলেন, ‘এখন ফেইসবুক ইনস্টাগ্রামের কাজই হচ্ছে কখন কাকে টার্গেট করা যায়। এখানে শুধু আমি একা নয়, এখানে প্রত্যেকেই কখনও না কখনও ট্রোলিংয়ের শিকার হতে হয়। এছাড়া মহিলারা তার স্বামীর পরিচয় নিয়ে বাঁচবেন, এটা আমি মানতে পারি না’।

আরও পড়ুন : ফের বিশ বাঁও জলে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো! পরিদর্শনে এসে ক্ষুব্ধ আধিকারিকরা, কী জানাচ্ছে কর্তৃপক্ষ?

যখন তাঁর সহ্যের সীমা পার করে যায়, তখন তিনি জবাব দিতে কাওকে ছাড়েন না। তাই তিনি শেষে জানিয়েছেন, ‘আমাকে নিয়ে ট্রল করার আগে একবার আমার চলচ্চিত্র বা আমার কাজ নিয়ে যাচাই করুন। তারপর সেগুলি নিয়ে কথা বলুন’। অভিনেত্রী এসবে তেমন ভাবে পাত্তা দেন না। তবে সেটা সহ্যের বাইরে হলে কড়া জবাব দিতেও ছাড়েন না।

সম্পর্কিত খবর