NGO’র নাম করে দেশবিরোধী কার্যকলাপ! উত্তর প্রদেশ ATS’র জালে ধরা পড়ল বাংলার বাসিন্দা

বাংলাহান্ট ডেস্ক: এনজিও’র নামে দেশ বিরোধী কাজ করার অভিযোগ। উত্তর প্রদেশ এটিএসের হাতে গ্রেপ্তার বাংলার বাসিন্দা। জানা গেছে ধৃতের নাম আবু সালেহ মন্ডল। ধৃত আবু সালেহ স্বরূপনগরের বাসিন্দা। বিদেশ থেকে অনুদান নিয়ে অনুপ্রবেশকারীদের সাহায্য করার অভিযোগ রয়েছে আবু সালেহর বিরুদ্ধে।

   

এমনকি ধৃত আবু সালেহর বিরুদ্ধে রোহিঙ্গাদের সাহায্য করার অভিযোগও উঠেছে। জানা গেছে, ভুয়ো আধার কার্ড তৈরি করে আবু সালেহ অনুপ্রবেশে সাহায্য করত বিদেশীদের। জাল নথিপত্র ব্যবহার করে বিদেশীদের সাহায্য করে  অর্থ তুলত আবু সালেহ। বিদেশ থেকে এনজিওর নামে সংগ্রহ করত কোটি কোটি টাকা।

আরোও পড়ুন : কমছেই না বিপদ! হাইকোর্টে ফের ধাক্কা খেলেন কালীঘাটের কাকু, বিচারপতি সিনহার নির্দেশই বহাল

এনজিওর নামে দেশবিরোধী কার্যকলাপের অভিযোগে উত্তর প্রদেশ এটিএস-এর হাতে গ্রেপ্তার হয়েছে আবু সালেহ। আবু সালেহর এনজিওর ওয়েবসাইটে উল্লেখ রয়েছে অনুদানের হিসাবের। তবে সব থেকে বড় কথা হল এখানে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের থেকেও অনুদানের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। কোথা থেকে এত টাকা আসল এই এনজিওতে?

আরোও পড়ুন : ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার এবার কলকাতায়! ২১৯ কোটি ব্যয়ে নিউটাউনে হচ্ছে ৩৮ তলার ‘ভার্টিকয়াল সিটি’

কে কে সাহায্য করত অর্থ দিয়ে? এই ধরনের হাজারো প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে এখন। ধৃত আবু সালেহর বাড়ি পশ্চিমবঙ্গের স্বরূপনগর এলাকায়। যদিও জানা গেছে এই বাড়িতে থাকতেন না আবু সালেহ। হারোয়া অঞ্চলের একটি মাদ্রাসায় থাকতেন তিনি। হারোয়া আল জামিয়াতুল ইসলামিয়া দারুল উলূম মাদ্রাসা এবং কবিরবাগ মিল্লাত একাডেমি নামক দুটি এনজিও পরিচালনা করেন আবু সালেহ।

arrest

সোমবার লখনউয়ের মানক নগর থেকে আবু সালেহ মন্ডলকে গ্রেপ্তার করেছে ATS। লন্ডনের উম্মা ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট থেকে 2018 থেকে 2022 সালের মধ্যে আবু সালেহর প্রতিষ্ঠানের অ্যাকাউন্টে 58 কোটি টাকার তহবিল পাঠানো হয়। সন্ত্রাসবাদি কার্যকলাপে অর্থ দেওয়ার অভিযোগে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র অনেক আগেই নিষিদ্ধ করেছে লন্ডনের উম্মা ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টকে।