এবার আরও সহজ হবে বিদেশ সফর! মাত্র ৫ দিনেই মিলবে পাসপোর্ট, এভাবে করুন আবেদন

বাংলা হান্ট ডেস্ক: পাসপোর্ট (Passport) একটি গুরুত্বপূর্ণ নথি হিসেবে বিবেচিত হয়। শুধু তাই নয়, বিদেশে ভ্রমণের ক্ষেত্রেও এটি অত্যন্ত প্রয়োজনীয় হয়ে ওঠে। যদিও, পাসপোর্ট তৈরি করার সময়ে অনেকেই বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হন। এর মধ্যে সবচেয়ে বড় সমস্যা হল পাসপোর্ট বানাতে অনেকটা সময় লাগে। এমন পরিস্থিতিতে হঠাৎ করে বিদেশ ভ্রমণের প্রয়োজন হলে সেক্ষেত্রে পোহাতে হয় ঝামেলা। আর এই কারণেই আপনি তৎকাল পাসপোর্টের সাহায্য নিতে পারেন। বর্তমান প্রতিবেদনে আজ আমরা এই প্রসঙ্গে বিস্তারিত তথ্য উপস্থাপিত করব।

   

একটি তৎকাল পাসপোর্ট তৈরি করতে কত সময় লাগে: জানিয়ে রাখি যে, তৎকাল পাসপোর্টের সরাসরি সংযোগ আপনার দেওয়া নথিগুলির মাধ্যমে ঘটে। কিন্তু পাসপোর্ট সেবার ওয়েবসাইটে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, আপনার আবেদন পাওয়ার ৫ দিনের মধ্যে এটি প্রস্তুত হয়ে যায়।

You will get passport in just 5 days, apply like this

তবে, মাথায় রাখতে হবে যে, এই সময়সীমা কনস্যুলেট কর্তৃক প্রাপ্ত আবেদনের ওপর ভিত্তি করে হয়। এর সাথে যদি আমরা পুলিশ ভেরিফিকেশনের বিষয়টি যোগ করি, সেক্ষেত্রে সব কাজ শেষ হতে প্রায় ১ মাস সময় লাগে।

আরও পড়ুন: ২ নয়, একলাফে ১৫ টাকা কমল পেট্রোল-ডিজেলের দাম! ভোটের আগে বিরাট উপহার

কারা আবেদন করতে পারবে না: জানিয়ে রাখি যে, তৎকাল পাসপোর্ট পাওয়ার ক্ষেত্রে কিছুজনের জন্য এটির আবেদন পর্যন্ত করা যায় না। এর মধ্যে দত্তক নেওয়া শিশু অথবা বাবা বা মা মারা গেছে এমন নাবালক, সারোগেসির মাধ্যমে জন্ম নেওয়া শিশু সামিল রয়েছে। এছাড়াও, আপনার পাসপোর্ট হারিয়ে গেলে বা চুরি হয়ে গেলে, আপনি তৎকাল স্কিমের অধীনে আবেদন করতে পারবেন না। এর পাশাপাশি এই স্কিমের অধীনে জন্ম তারিখও সংশোধন করা যায় না।

আরও পড়ুন: কিছু না করেই প্রতিমাসে মিলবে লক্ষ লক্ষ টাকা! কোহলি-অভিষেকের এই টিপস কাজে লাগান আপনিও

ফি কত: পাসপোর্ট তৈরি করার সময় আপনাকে ২ টি অপশন দেওয়া হয়। একটি হল সাধারণ পাসপোর্টের জন্য, অন্যটি হল তৎকাল পাসপোর্টের জন্য। তৎকাল পাসপোর্টের জন্য আপনাকে ৩,৫০০ টাকা দিতে হবে। অপরদিকে, একটি সাধারণ পাসপোর্ট করতে আপনার খরচ হবে ১,৫০০ টাকা। এমন পরিস্থিতিতে, আপনি যদি দ্রুত পাসপোর্ট পেতে চান, সেক্ষেত্রে আপনি তৎকাল পাসপোর্টের সাহায্য নিতে পারেন।

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর