অ্যাডভেঞ্চারের নেশা! “স্বর্গের সিঁড়ি”-তে উঠতে গিয়ে ৩০০ ফুট উচ্চতায় পিছলে গেল পা, তারপরে যা ঘটল….

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক: আমাদের চারপাশে এমন অনেকেই রয়েছেন যাঁরা অ্যাডভেঞ্চার (Adventure) অত্যন্ত পছন্দ করেন। পাশাপাশি, বিভিন্ন রোমাঞ্চকর বিষয়ের মাধ্যমেই অনাবিল আনন্দ খুঁজে পান তাঁরা। তবে, কিছু কিছু ক্ষেত্রে এহেন নেশাই বড় বিপদের কারণ হয়ে দাঁড়ায়। সম্প্রতি ঠিক সেইরকমই এক মর্মান্তিক ঘটনা সামনে এসেছে। যেটি জানার পর শিউরে উঠবেন সকলেই।

এই প্রসঙ্গে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী জানা গিয়েছে যে, সম্প্রতি অস্ট্রিয়ায় একটি পর্বত আরোহণের সময়ে ৯০ মিটারেরও বেশি উচ্চতা থেকে পড়ে গিয়ে প্রাণ হারিয়েছেন ৪২ বছর বয়সী একজন ব্যক্তি। এদিকে, ওই পর্বতটি নেটমাধ্যমেও অত্যন্ত জনপ্রিয়। এছাড়াও, অ্যাডভেঞ্চার প্রিয় মানুষদের ওই পর্বতটি বেশ আকৃষ্ট করে।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by 365 Austria (@365austria)

এই মর্মান্তিক ঘটনাটি গত ১২ সেপ্টেম্বর ঘটে। সিঁড়ি দিয়ে ওঠার সময় ওই ব্যক্তি পিছলে গিয়ে নিচের উপত্যকায় পড়ে যান। এদিকে, দুর্ঘটনার পরই পুলিশ আধিকারিকরা সহ একটি উদ্ধারকারী হেলিকপ্টার ঘটনাস্থলে পৌঁছলেও ওই ব্যক্তিকে বাঁচানো যায়নি। উদ্ধারকর্মীরা তাঁর মৃতদেহ উদ্ধার করেন।

আরও পড়ুন: সুখবর! এবার দুর্দান্ত বেতনের চাকরির জন্য বিজ্ঞপ্তি জারি রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের, এভাবে করুন আবেদন

এই প্রসঙ্গে মেট্রোর একটি রিপোর্টে বলা হয়েছে, “এই এলাকাটি ইনস্টাগ্রামে খুবই জনপ্রিয়। ওই সিঁড়িটি স্থানীয়ভাবে ‘স্বর্গের সিঁড়ি’ নামে পরিচিত।” আরও জানানো হয়েছে যে, নিহত ব্যক্তি একাই আরোহণে গিয়েছিলেন এবং সেখানে অন্য কোনো পর্যটক উপস্থিত ছিলেন না। তবে, ওই ব্যক্তির পরিচয় প্রকাশ করা হয়নি। এছাড়াও, আধিকারিকরা এই ঘটনায় কোনো রকমের গাফিলতির কথা অস্বীকার করেছেন।

আরও পড়ুন: আর মাত্র কিছুদিনের অপেক্ষা! ভারতে লঞ্চ হতে চলেছে সবথেকে সস্তার 5G স্মার্টফোন, চমকে দেবে এটির ফিচার্স

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, এই সিঁড়িতে আরোহণ করা হয় চারটি ধাপে। যেটির বিশদ বিবরণ ওয়েবসাইটে দেওয়া রয়েছে। যেখানে বলা হয়েছে, “স্বর্গের সিঁড়িটি পর্বতারোহী হ্যালি পুটজের সহযোগিতায় আউটডোর লিডারশিপ দ্বারা তৈরি করা হয়েছিল।” যদিও, এই আরোহণটিকে অনেকটাই কঠিন হিসেবে বিবেচিত করা হয়েছে। ওয়েবসাইটটি সতর্ক করেছে যে, এই আরোহণটি শুধুমাত্র অভিজ্ঞ পর্বতারোহীদের জন্য। পাশাপাশি, এটি ভালো আবহাওয়া এবং হালকা বাতাসের পরিস্থিতিতে সম্পন্ন করা উচিত।

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর