জাপানকে হারিয়ে তৃতীয় বৃহত্তম অটো মার্কেট ভারতে! এই বছরের মধ্যে লক্ষ্য প্রথম স্থান

বাংলা হান্ট ডেস্ক: বর্তমানে অটোমোবাইল সেক্টরে (Automobile Sector) ভারত (India) দ্রুত এগিয়ে চলেছে। শুধু তাই নয়, সাম্প্রতিক পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ভারতীয় অটোমোবাইল শিল্প বিশ্বের তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে। সবথেকে উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, ভাইব্রেন্ট গুজরাট গ্লোবাল সামিট ২০২৪-এ কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহণ ও মহাসড়ক মন্ত্রী নীতিন গড়করি (Nitin Gadkari) জানিয়েছেন, জাপানকে (Japan) টপকে বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম অটোমোবাইল বাজারে পরিণত হয়েছে ভারত।

   

FICCI আয়োজিত “ইলেকট্রিক ভেহিক্যাল ম্যানুফ্যাকচারিং: চার্জিং অ্যাওয়ার্ড টু ২০৪৭” সেশানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে গড়করি ২০২১ সালের তুলনায় ২০২৩ সালে বৈদ্যুতিক গাড়ি বিক্রয় ৫০০ শতাংশ বৃদ্ধি পাওয়ার বিষয়টিও তুলে ধরেন। এর পাশাপাশি, নীতিন গড়করি এটাও ঘোষণা করেছেন যে, “আগামী সময়ে আমাদের লক্ষ্য হল দেশকে বিশ্বের এক নম্বর ভেহিক্যাল ম্যানুফ্যাকচারিং হাবে পরিণত করা।”

Beating Japan, the third largest auto market in India

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জানান যে তিনি ভেহিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিকে ২৫ লক্ষ কোটি টাকায় নিয়ে যেতে চান। ভাইব্রেন্ট গুজরাট গ্লোবাল সামিটে ভাষণ দেওয়ার সময় কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অটোমোবাইল নির্মাতাদের বৈদ্যুতিক যানবাহনে বিনিয়োগ করার ক্ষেত্রেও গুরুত্ব দেন। গড়করি বলেন, “প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর দেশকে পাঁচ ট্রিলিয়ন ডলারের অর্থনীতি এবং স্বনির্ভর করার লক্ষ্যের অধীনে, আমরা ভেহিক্যাল সেক্টরকে ২৫ লক্ষ কোটি টাকার শিল্পে পরিণত করতে চাই।” তিনি বলেন, “আমাদের লক্ষ্য হল ভারতীয় অটোমোবাইল শিল্পকে বিশ্বের এক নম্বর উৎপাদন কেন্দ্রে পরিণত করা।”

আরও পড়ুন: বড় খবর! এবার টিকটকের মতো ভারতে বন্ধ হতে চলেছে ইউটিউব? কড়া নোটিশ পাঠাল সরকার

গড়করি আরও জানান যে তিনি যখন মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেছিলেন, তখন ভারতের অটোমোবাইল সেক্টর বিশ্বের সপ্তম স্থানে ছিল। তাঁর মতে, “এখন আমরা জাপানকে পেছনে ফেলে তৃতীয় স্থানে চলে এসেছি। অটোমোবাইল সেক্টরে প্রচুর সম্ভাবনা রয়েছে এবং এটি কেবল অভ্যন্তরীণ বাজারে নয়, আন্তর্জাতিক বাজারেও বিস্তৃত রয়েছে।”

আরও পড়ুন: নতুন বছরে বাজিমাত Microsoft-এর! Apple-কে টেক্কা দিয়ে হল বিশ্বের সবচেয়ে “ভ্যালুয়েবল” কোম্পানি

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, ভারতে অটোমোবাইল শিল্পের ভ্যালুয়েশন ১২.৫ লক্ষ কোটি টাকা। গড়করি বলেন, “এই শিল্প দেশে চার কোটি কর্মসংস্থান তৈরি করেছে। পাশাপাশি, শিল্পটি রাজ্য এবং কেন্দ্রীয় সরকারকে পণ্য ও পরিষেবা করের (GST) আকারে সর্বোচ্চ রাজস্ব দেয়।” এদিকে, বৈদ্যুতিক যানবাহনের বিষয়ে তিনি বলেন, ভারতে বৈদ্যুতিক গাড়ির বিক্রয় গত কয়েক বছরে বহুগুণ বেড়েছে। জানিয়ে রাখি যে, FICCI ইলেকট্রিক ভেহিক্যাল কমিটির চেয়ারম্যান সুলাজ্জা ফিরোদিয়া মোটওয়ানি ২০৪৭ সালের মধ্যে ভারতের ইভি সেক্টরে গ্লোবাল লিডার অর্থাৎ প্রথম স্থানে পৌঁছে যাওয়ার ক্ষেত্রে আশা প্রকাশ করেছেন।