মহাবিশ্বের সব রহস্যের হবে সমাধান! বিশ্বের বৃহত্তম রেডিও টেলিস্কোপ তৈরিতে সাহায্য ভারতের

বাংলা হান্ট ডেস্ক: এবার একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপের সাথে ভারতের (India) যুক্ত হওয়ার বিষয় সামনে এসেছে। যেটি সম্পর্কে জানার পর অবাক হবেন প্রত্যেকেই। এই প্রসঙ্গে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী জানা গিয়েছে যে, এবার বিশ্বের বৃহত্তম রেডিও টেলিস্কোপ তৈরি হচ্ছে। যেটির নাম দেওয়া হয়েছে “স্কয়ার কিলোমিটার অ্যারে অবজারভেটরি” (Square Kilometer Array, SKA)। আর যেটি সবথেকে উল্লেখযোগ্য বিষয় তা হল এই প্রকল্পেই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে ভারত। মূলত, বিশ্বের বৃহত্তম এই রেডিও টেলিস্কোপ তৈরিতে ১৬ টি দেশ একত্র হয়েছে। যার মধ্যে অন্যতম হল ভারতও।

   

শুধু তাই নয়, এই দূরবীক্ষণ যন্ত্রটি তৈরি করতে ভারত বিনিয়োগ করছে ১,২৫০ কোটি টাকা। উল্লেখ্য যে, মহাবিশ্বে দৃশ্যমান নক্ষত্রপুঞ্জ অধ্যয়ন করার পাশাপাশি গবেষণা করতে সাহায্য করবে এই দূরবীক্ষণ যন্ত্র। এই প্রথম এহেন দূরবীক্ষণ যন্ত্র তৈরি করা হচ্ছে। এমতাবস্থায়, “স্কয়ার কিলোমিটার অ্যারে” প্রকল্পের কাজ সম্পূর্ণ হলে, এটিই পৃথিবীর বৃহত্তম এবং সবচেয়ে শক্তিশালী রেডিও দূরবীক্ষণ যন্ত্র হিসেবে বিবেচিত হবে।

India helped build the world's largest radio telescope

যদিও, “স্কয়ার কিলোমিটার অ্যারে অবজারভেটরি” কিন্তু কোনো একটিমাত্র দূরবীক্ষণ যন্ত্র নয়। বরং, এটি অস্ট্রেলিয়া এবং দক্ষিণ আফ্রিকার বিশাল দূরত্ব জুড়ে থাকা হাজার হাজার রেডিও অ্যান্টেনার সমন্বয় হতে চলেছে। প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী জানা গিয়েছে যে, “স্কয়ার কিলোমিটার অ্যারে” দূরবীক্ষণ যন্ত্রটি দু’টি ধাপে তৈরি হবে। যেটির প্রথম পর্যায়ের কাজ শুরু হয়েছিল ২০২২ সালের ডিসেম্বরে। এমতাবস্থায়, ২০২৯ সালের মধ্যে দু’টি ধাপের কাজই শেষ হয়ে যাবে বলে অনুমান করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন: বড় খবর! এবার টিকটকের মতো ভারতে বন্ধ হতে চলেছে ইউটিউব? কড়া নোটিশ পাঠাল সরকার

এই প্রকল্পের উদ্দেশ্য: জানিয়ে রাখি যে, “স্কয়ার কিলোমিটার অ্যারে” দূরবীক্ষণ যন্ত্রটির প্রধান উদ্দেশ্যই হবে সুবিশাল মহাবিশ্বকে মানুষের কাছে আরও সহজ করে তোলা। পাশাপাশি, এটির সাহায্যে মহাবিশ্বের একাধিক জটিল রহস্যের সমাধান হবে বলেও আশাবাদী বিজ্ঞানীরা। এই প্রসঙ্গে বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, ‘স্কয়ার কিলোমিটার অ্যারে” রেডিও দূরবীক্ষণ যন্ত্রটি অন্যান্য রেডিও দূরবীক্ষণ যন্ত্রের তুলনায় সংবেদনশীল হবে ৫০ গুণ বেশি। এর পাশাপাশি কিভাবে প্রাচীনতম ছায়াপথগুলি কোটি কোটি বছর ধরে তৈরি এবং বিবর্তিত হয়েছে, সেই প্রসঙ্গেও বিজ্ঞানীদের কাছে একটি স্বচ্ছ ধারণা তৈরি করতে সাহায্য করবে এই দূরবীক্ষণ যন্ত্র। এমতাবস্থায়, অস্ট্রেলিয়া এবং দক্ষিণ আফ্রিকাতে এই দূরবীক্ষণ যন্ত্রটি তৈরি হবে।

আরও পড়ুন: নতুন বছরে বাজিমাত Microsoft-এর! Apple-কে টেক্কা দিয়ে হল বিশ্বের সবচেয়ে “ভ্যালুয়েবল” কোম্পানি

ভারত ছাড়াও এই প্রকল্পে যুক্ত থাকছে কোন কোন দেশ: “স্কয়ার কিলোমিটার অ্যারে” প্রকল্পে ভারত ছাড়াও যে ১৫ টি দেশ যুক্ত রয়েছে সেগুলি হল- সুইজারল্যান্ড, ফ্রান্স, জার্মানি, নেদারল্যান্ডস, সুইডেন, ইতালি, অস্ট্রেলিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, কানাডা, চিন, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, যুক্তরাজ্য, পর্তুগাল এবং স্পেন।