ফের রক্তাক্ত পাকিস্তান, সেনা ঘাঁটিতে ভয়াবহ হামলা, মৃত অন্তত ২৩, এখনও চলছে শুটআউট

বাংলা হান্ট ডেস্ক : সন্ত্রাসবাদী হামলায় (Terror Attack) জেরবার পাকিস্তান (Pakistan)। গোয়েন্দা ইনপুট বলছে, গত বছরের তুলনায় পাকিস্থানে জঙ্গি হামলার ঘটনা অনেকটাই বেড়েছে। আর এবার তো হামলা সোজা পুলিশ স্টেশনে। নিহত কমপক্ষে ২৩, আহত একাধিক। সূত্রের খবর, আত্মঘাতী বোমা বিষ্ফোরণের (Suicide Blast) এই ঘটনাটি ঘটেছে আফগানিস্তানের সীমান্তবর্তী খাইবার পাখতুনখোয়ার প্রদেশে।

   

পড়শি দেশ থেকে খবর আসছে, জিহাদিরা একটি বিষ্ফোরক বোঝাই গাড়ি থানার গেটের সামনে দাঁড় করিয়ে লাগাতার গুলি বর্ষণ করতে শুরু করে। দুষ্কৃতিদের এই তাণ্ডবে ইতিমধ্যেই প্রাণ হারিয়েছে ২৩ জন। আহত হয়েছে একাধিক। সেই সাথে দাঁড়িয়ে থাকা তিনটি যুদ্ধবিমান ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বিস্ফোরণের জেরে একটি বিমানে আগুনও ধরে যায় বলে খবর।‌ তবে এখনও পর্যন্ত জঙ্গি নিকেশে সক্ষম হয়নি পাক পুলিশ। শেষ পাওয়া খবর মোতাবেক এখনও পুলিশের সঙ্গে জেহাদিদের গুলির লড়াই চলছে।

সূত্র বলছে, এই গোটা হামলার দায় স্বীকার করেছে পাকিস্তানের অন্যতম সন্ত্রাসী সংগঠন তেহরিক-ই-জিহাদ (Tehrik-e-Jihad)। যদিও এটাই প্রথম নয়, এর আগেও জানুয়ারি মাসে পেশোয়ারে একটি মসজিদ লক্ষ্য করে আত্মঘাতী বোমা হামলা চালিয়েছিল জঙ্গিরা। সেবার প্রায় ১০১ জনের মৃত্যু হয়। কেউ কেউ বলছে, এই সংগঠন নাকি টিটিপির একটি অংশ। গতবছরও পাক মাটিতে একাধিক হামলা ঘটিয়েছে এই সংগঠন।

আরও পড়ুন : সত্যিই জনদরদী, রেশন কার্ড থাকলেই মিলবে ৬ হাজার টাকা! বড় ঘোষণা রাজ্য সরকারের

জেনে অবাক হবেন যে, কেবল এই বছরের মধ্যেই এই প্রদেশে ১০৫০টা সন্ত্রাসী ঘটনা ঘটেছে। রাজ্যের স্বরাষ্ট্র দফতর এবং উপজাতীয় বিষয়ক সংস্থার রেকর্ড অনুসারে, গত তিন বছরে মোট ১৮২৩ টি সন্ত্রাসী ঘটনায় ৬৯৮ জন নিরাপত্তা কর্মী মারা গেছেন। গত বছর পাকিস্তান-আফগান সীমান্তের সাতটি এলাকাকে সন্ত্রাসবাদের হটস্পট হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে।

আরও পড়ুন : বছরের শুরুতেই সুখবর! চালু হাওড়া-এসপ্ল্যানেড রুট? বড় আপডেট দিল কলকাতা মেট্রো

pakistan mosque bombing 31 1675083691923 1675083691923 1675083727932 1675083727932

এই অঞ্চলগুলির মধ্যে রয়েছে পেশোয়ার, খাইবার, উত্তর ওয়াজিরিস্তান, দক্ষিণ ওয়াজিরিস্তান, ডেরা ইসমাইল খান, বাজাউর এবং ট্যাঙ্ক। চলতি বছরের ১০৫০টি সন্ত্রাস হামলার মধ্যে বন্দোবস্তিতে ৪১৯টি, FATA-তে , ৬৩১টি, উত্তর ওয়াজিরিস্তানে ২১০টি, খাইবারে ১৬৯টি, দক্ষিণ ওয়াজিরিস্তানে ১২১টি, ডেরা ইসমাইল খানে ৯৮টি, বাজাউরে ৬২টি, ট্যাঙ্ক এবং পেশোয়ারে ৬১টি হামলা হয়েছে।