এই ভাষাটিতেই সবথেকে বেশি মানুষ কথা বলে বিশ্বজুড়ে! উত্তর শুনলে চোখ কপালে উঠবে

   

বাংলাহান্ট ডেস্ক : আকার ইঙ্গিতে মনের ভাব প্রকাশ করা মানুষ যখন ভাষার ব্যবহার শিখলো তখন মনের ভাব প্রকাশ করার ক্ষেত্রে আর কোন ব্যবধান রইল না। কিন্তু তবুও সারা বিশ্বের এত জনজাতি এত ভাষাভাষীর মানুষের ভাষা কিন্তু আলাদাই হয়। পৃথিবীতে বর্তমানে ৭হাজার ১৬৮ টি ভাষা জানিয়েছে সামার ইন্সটিটিউট অফ লিঙ্গুইস্টিক্‌স (এসআইএল)।

তার মধ্যে ঝুঁকিপূর্ণ ভাষা রয়েছে ৪২ শতাংশ। সব ভাষার মধ্যে বহুল ব্যবহৃত ভাষা হল ইংরেজি (English)। পৃথিবীতে কিন্তু কম সংখ্যক দেশের মাতৃভাষা ইংরেজি। এমন অনেক দেশ আছে যেখানে ইংরেজি ভাষাকে কোন প্রাধান্যই দেওয়া হয় না। পৃথিবীতে ৮০০ কোটি মানুষের মধ্যে দেড়শ কোটি মানুষ ইংরেজিতে কথা বলেন বলে তথ্য দিয়েছে এথনোলগ।

আরোও পড়ুন : প্রবীণ নাগরিকদের জন্য বিশেষ কার্ড করে দিচ্ছে সরকার! সুবিধা কী মিলবে? জানুন বিস্তারিত

মাতৃভাষার বিচারে ইংরেজি ভাষা রয়েছে তৃতীয় স্থানে। এই ভাষার সৃষ্টি ইউনাইটেড কিংডমে। আফ্রিকা, দক্ষিণ আমেরিকা, এশিয়া এবং ক্যারিবীয় অঞ্চলে ব্রিটিশরা তাদের উপনিবেশ স্থাপন করতে গিয়ে ভাষার বিস্তারও ঘটায়। ব্রিটিশ শাসনের অবসান ঘটেছে ভারতীয় উপমহাদেশ সহ একাধিক দেশে। তবুও ইংরেজি ভাষার আধিক্য কমেনি। পৃথিবীর মোট ১৪৬টি দেশে এখনো মানুষ ইংরেজিতে কথা বলেন।

আরোও পড়ুন : হঠাৎ শুভেন্দুর বাড়িতে হানা পুলিশের! তারপর যা করলেন বিরোধী দলনেতা, তোলপাড় রাজ্য

ম্যান্ডারিন চাইনিজ ভাষায় চিনের অধিকাংশ মানুষ কথা বলেন। শুধুমাত্র ভাষার নিরিখে বিচার করতে গেলে ম্যান্ডারিন চাইনিজ ভাষায় কথা বলার মানুষের সংখ্যা বেশি বলে জানিয়েছে এথনোলগ। ম্যান্ডারিন চাইনিজ ভাষা হলো মাতৃভাষা পৃথিবীর ৯৪ কোটি মানুষের। সারা বিশ্বে এই ভাষায় কথা বলেন প্রায় ১১০ কোটি মানুষ। চীন হলো বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম জনবহুল দেশ।

book link01

সেখানে এখনো ১৪০ কোটির বেশি জনসংখ্যা। এথনোলগ এর তথ্য অনুযায়ী, ম্যান্ডারিং চাইনিজ ভাষায় কথা বলেন সেখানকার ৮১ শতাংশ মানুষ। ম্যান্ডারিন ভাষায় কথা বলা মানুষের বৃহৎ অংশ বসবাস করেন কানাডা, মায়ানমার, মঙ্গোলিয়া, ভিয়েতনাম, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড-সহ মোট ৩৭টি দেশে। চীনের জন্মানো এই ভাষা নাকি বিশ্বের অন্যতম কঠিন ভাষা।

Avatar
Soumita

আমি সৌমিতা। বিগত ৩ বছর ধরে কর্মরত ডিজিটাল সংবাদমাধ্যমে। রাজনীতি থেকে শুরু করে ভ্রমণ, ভাইরাল তথ্য থেকে শুরু করে বিনোদন, পাঠকের কাছে নির্ভুল খবর পৌঁছে দেওয়াই আমার একমাত্র লক্ষ্য।

সম্পর্কিত খবর