সময় মাত্র ৪৫ দিন! চিটফান্ড কেলেঙ্কারির মামলায় এবার রাজ্য সরকারকে “ডেডলাইন” দিল হাইকোর্ট

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক: এবার চিটফান্ড কেলেঙ্কারির মামলায় বিনিয়োগকারীদের টাকা ফেরত দেওয়ার জন্য একটি উচ্চ পর্যায়ের কমিটি গঠনের নির্দেশ দেওয়া হল। এই প্রসঙ্গে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী জানা গিয়েছে যে, ঝাড়খণ্ড হাইকোর্ট (Jharkhand High Court) বিভিন্ন চিটফান্ড কোম্পানিতে বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগ করা অর্থ ফেরতের বিষয়টি নিশ্চিত করতে একটি উচ্চ পর্যায়ের কমিটি গঠন করার জন্য সংশ্লিষ্ট রাজ্য সরকারকে ৪৫ দিনের সময়সীমা বেঁধে দিয়েছে।

প্রধান বিচারপতি সঞ্জয় কুমার মিশ্র এবং বিচারপতি আনন্দ সেনের ডিভিশন বেঞ্চ এই বিষয়ের শুনানি করে সরকারকে আদালতের নির্ধারিত সময়ের মধ্যে একটি উচ্চ-পর্যায়ের কমিটি গঠনের বিষয়ে জানাতে নির্দেশ দিয়ে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে।

High Court has given a "deadline" to the state government in the chit fund scam case

শুধু তাই নয়, হাইকোর্টের প্রাক্তন প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে উচ্চ পর্যায়ের কমিটি গড়তে হবে বলেও সাফ জানিয়ে দিয়েছে বেঞ্চ। এই প্রসঙ্গে গত সোমবার আদালত তার নির্দেশে জানিয়েছে যে, কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হবেন রাজস্ব বোর্ডের সচিব এবং সিবিআই-এর ডিআইজি পদমর্যাদার আধিকারিক।

আরও পড়ুন: বড় খবর! লঞ্চের দিন থেকেই “মেড ইন ইন্ডিয়া” iPhone 15 বিক্রি শুরু করবে Apple, কতটা কমবে দাম?

পাশাপাশি, আদালত জানিয়েছে যে, “কমিটি কাজ করবে এবং বিভিন্ন চিটফান্ড কোম্পানির দ্বারা প্রতারিত হওয়া বিনিয়োগকারীদের অর্থ ফেরত নিশ্চিত করার বিষয়ে সিবিআই তদন্ত করছে এমন মামলাগুলির জন্য পরিকল্পনা শুরু করবে।” এদিকে, আগামী ৮ নভেম্বর এই বিষয়ে ফের শুনানি হবে আদালতে।

আরও পড়ুন: চাঁদ-সূর্যকে “হ্যালো” জানিয়ে এবার গভীর সমুদ্রে পৌঁছবে ভারত! শুরু হতে চলেছে এই দুর্ধর্ষ মিশন

২৫ হাজার কোটি টাকার কেলেঙ্কারি: এই প্রসঙ্গে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী জানা গিয়েছে যে, ঝাড়খণ্ডে প্রায় ২৫ হাজার কোটি টাকার চিটফান্ড কেলেঙ্কারির ঘটনা ঘটেছে। এমতাবস্থায়, হাইকোর্টের নির্দেশে এই বিষয়ে সিবিআই তদন্ত চলছে। পাশাপাশি, হাইকোর্ট রাজ্যের সমস্ত থানায় চিটফান্ড সংক্রান্ত সব এফআইআর সিবিআইকে হস্তান্তর করার নির্দেশ দিয়েছিল। তারপর থেকেই সমস্ত মামলা সিবিআই-এর কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর