লটারি লাগল ভিখারি পাকিস্তানের, খোঁজ মিলল বিপুল খাজনার, এবার খুলতে পারে ভাগ্য

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক: বর্তমান সময়ে চরম সঙ্কটের মধ্যে রয়েছে পাকিস্তান (Pakistan)। একদিকে, ওই দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা শোচনীয় হয়ে রয়েছে। অপরদিকে, সম্প্রতি ভয়াবহ বন্যার কারণে বিপর্যস্ত হয়েছে দেশ। তবে, ঠিক এই আবহেই সামনে এল একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ খবর। যেটি পাল্টে দিতে পারে ওই দেশের ভাগ্য। এই প্রসঙ্গে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী জানা গিয়েছে যে, সম্প্রতি, ওই দেশের তেল এবং প্রাকৃতিক গ্যাসের অফুরন্ত ভান্ডারের সন্ধান মিলেছে।

এদিকে, পাকিস্তানের জন্য এই খবর এমন এক সময়ে সামনে এসেছে যেখানে দীর্ঘদিন ধরে প্রাকৃতিক গ্যাসের ঘাটতির সঙ্গে লড়াই করছিল ওই দেশ। গত সোমবার পাকিস্তানের মারি পেট্রোলিয়াম কোম্পানি লিমিটেড (MPCL) এই বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। সংস্থাটি জানিয়েছে যে, সিন্ধুর ডাহারকি জেলায় তেল ও গ্যাসের ভান্ডার আবিষ্কৃত হয়েছে। পাশাপাশি, ওই সংস্থাটি তার বিবৃতিতে আরও জানিয়েছে যে, ২০২৪ সালের জানুয়ারিতে খনন করা শাওয়াল-১ কূপটি মোট ১,১৩৬ মিটার গভীরতায় পৌঁছেছিল। এই কূপ থেকে প্রতিদিন ১,০৪০ ব্যারেল তেল এবং ২.৫ মিলিয়ন কিউবিক প্রাকৃতিক গ্যাস বের হচ্ছে।

এমতাবস্থায়, কোম্পানির সিইও ফাহিম হায়দার জানিয়েছেন, সামগ্রিক বিষয়টি বেশ চ্যালেঞ্জিং ছিল। তিনি এই সাফল্যকে সেই সমস্ত বিজ্ঞানী এবং ইঞ্জিনিয়ারদের জন্য একটি মাইলফলক হিসেবে বিবেচনা করেছেন যাঁরা এই গুরুত্বপূর্ণ আবিষ্কারে নতুন প্রযুক্তি ব্যবহার করেছেন। তিনি জানান যে, MPCL-এর ২০২৪ সালের জানুয়ারিতে খাইবার-পাখতুনখাওয়ার উত্তর ওয়াজিরিস্তান জেলায় গ্যাস আবিষ্কার করার পরে এই সাফল্য এসেছে।

Huge reserves of fuel were found in Pakistan.

উল্লেখ্য যে, এর আগে সরকারি পেট্রোলিয়াম কোম্পানি পাকিস্তান পেট্রোলিয়াম লিমিটেড (PPL) ২০২৩ সালের নভেম্বরে সিন্ধুর সাজাওয়াল জেলায় প্রাকৃতিক গ্যাসের ভান্ডারের আবিষ্কারের ঘোষণা করেছিল। গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, শাহবন্দরে ২,৫৪৫ মিটার গভীরে খনন অভিযানের পর এই সাফল্য অর্জিত হয়েছে। এটি থেকে দৈনিক ২৩৬ ব্যারেলের উৎপাদন রেকর্ড হয়েছে।

আরও পড়ুন: পন্থ-হার্দিক নয়! রোহিতের পর ভারতের T20 অধিনায়ক হিসেবে এই প্লেয়ারকে দেখতে চান ভাজ্জি

পাকিস্তানে তেল ও গ্যাসের ঘাটতি রয়েছে: এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখি যে, পাকিস্তানের তেল এবং গ্যাসের যথেষ্ট ঘাটতি রয়েছে। এমনকি ওই দেশ থেকে একাধিক কোম্পানি এই কারণে চলেও যায়। রিপোর্ট অনুযায়ী জানা গিয়েছে যে, গত বছর তেল ও গ্যাস উত্তোলনের সঙ্গে জড়িত ১০ টিরও বেশি আন্তর্জাতিক কোম্পানি পাকিস্তানে তাদের ব্যবসা বন্ধ করে দিয়েছে। এই কারণে পাকিস্তানে তেল উৎপাদন ৫০ শতাংশ কমে গেছে।

আরও পড়ুন: গরমের ছুটিতে দিঘা যাওয়ার আগে জানুন এই নিয়ম! অন্যথায় মিলবে না হোটেল, পড়বেন বড় বিপদে

উল্লেখ্য যে, জ্বালানি সঙ্কটের মুখোমুখি পাকিস্তান প্রতি বছর পেট্রোল, ডিজেল এবং প্রাকৃতিক গ্যাস আমদানিতে প্রায় ১.৯১ লক্ষ কোটি টাকা ব্যয় করে। এর মধ্যে ১.৩৩ লক্ষ কোটি টাকা পেট্রোল ও ডিজেলে এবং ৫৪ হাজার কোটি টাকা গ্যাসে খরচ হয়। তবে, এবার পাকিস্তানে জ্বালানির নতুন ভান্ডারের আবিষ্কারের বিষয়টি নিঃসন্দেহে স্বস্তি জোগাবে ওই দেশকে।

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর