স্ত্রীয়ের জন্মদিন ভুলে গেলেই হাজতবাস! এই দেশে চালু হল আজব নিয়ম, শুনলে চমকে উঠবেন

বাংলা হান্ট ডেস্ক : জন্মদিন (Birthday) নিয়ে উৎসাহ তো সকলেরই থাকে। মায়ের হাতের পায়েস থেকে শুরু করে কেক, মোমবাতি আর প্রিয়জনের কাছে একটা সারপ্রাইজ তো সকলেই আশা করে থাকে।তবে একাধিক মেয়ের অভিযোগ থাকে যে, বেশিরভাগ সময়ই তাদের স্বামীরা নাকি জন্মদিনের তারিখ ভুলে যান। শুনতে খুবই সামান্য মনে হলেও, একটা দেশ এমন আছে যেখানে এটা আইনত অপরাধ।

যদিও আমাদের দেশে এরকম ঘটনা আকছার ঘটে থাকে, তবে সেক্ষেত্রে অভিমান গলানো খুব একটা কঠিন হয়না। সাময়িক রাগ-অনুরাগের পালা শেষে মানভঞ্জনে খুব বেশি সময় লাগে না। তবে এই বিশ্বেই এমন এক দেশ রয়েছে যেখানে স্ত্রীর জন্মদিন (Wife’s Birthday) নিয়ে রীতিমত আতঙ্কে থাকেন স্বামীরা (Husband)। কারণ সেই দেশে, স্ত্রীয়ের জন্মদিন ভুলে যাওয়া আইনত অপরাধ। এই অপরাধের জন্য হতে পারে জেল।

সূত্রের খবর, ওশানিয়ার সামোয়া (Samoa) নামক একটি দেশে এই অদ্ভুত আইন প্রযোজ্য। বিয়ের পর প্রথম বছর স্ত্রীর জন্মদিন (Wife Birthday) ভুলে গেলে সেই ব্যক্তির কাছে আসে সতর্কবার্তা। তবে যদি তার পরের বছরও একই ভুল হয় এবং স্ত্রী থানায় অভিযোগ দায়ের করে তবে অভিযুক্ত ব্যক্তির জেল বা মোটা টাকার জরিমানা অনিবার্য।

আরও পড়ুন : স্রেফ বাচ্চার জন্যই বিয়ে করেছিলেন! এতবছর পর সইফকে নিয়ে বিষ্ফোরক করিনা

সূত্রের খবর, সামোয়ায় স্ত্রীর জন্মদিন ভুলে গেলে নূন্যতম পাঁচ বছরের সাজা হতে পারে অভিযুক্ত স্বামীর। আর এই আইনের সঠিক দেখভালের জন্য গোটা দেশে একাধিক পুলিশ কর্মী মোতায়েন রয়েছে। এর জন্য রয়েছে আলাদা পুলিশ বিভাগ। এমনকি যাতে সমস্ত স্ত্রীরা এই বিষয়টা নিয়ে ওয়াকিবহাল থাকে তার জন্য দেশজুড়ে প্রচারও চালানো হয়।

আরও পড়ুন : মঙ্গলসূত্র-আংটি চললেও হিজাব নয়! নিয়োগ পরীক্ষার পোশাক বিধিতে শুরু নয়া বিতর্ক

তবে আইনের হাত থেকে বাঁচার একটা উপায় রয়েছে। স্বামী যদি তার অপরাধের কথা বুঝতে পারেন এবং সেটা নিয়ে অনুতপ্ত হন তাহলে সাজা মকুব হলেও হতে পারে। আর তাই এই দেশে সব স্বামীরাই সবসময় স্ত্রীদের আদরযত্নে রাখেন। স্ত্রীদের সব দাবি মেনে চলে যাতে জন্মদিন ভুলে গেলেও সে যেন পুলিশের কাছে গিয়ে অভিযোগ না জানায়।