আম্বানির বড় পদক্ষেপ! ভারতের পাশাপাশি এই দেশে বাজবে Reliance Jio-র ডঙ্কা, সম্পন্ন হল চুক্তি

   

বাংলা হান্ট ডেস্ক: এবার একটি অত্যন্ত বড় আপডেট সামনে এসেছে। এই প্রসঙ্গে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী জানা গিয়েছে যে, রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের (Reliance Industries Limited, RIL) প্রধান মুকেশ আম্বানির (Mukesh Ambani) সংস্থা Reliance Jio এখন ভারতে (India) আধিপত্য বিস্তার করে আফ্রিকার (Africa) বাজারে প্রবেশ করতে চলেছে। মূলত, আফ্রিকার দেশ ঘানা 4G এবং 5G পরিকাঠামো স্থাপনের জন্য Reliance Jio-র সহযোগী সংস্থা, Tech Mahindra এবং অন্যান্য ভেন্ডারদের সাথে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে। রিপোর্ট অনুসারে, এই মোট চুক্তির মূল্য ২০ কোটি ডলারের বেশি।

ঘানার পরিকল্পনা: এই প্রসঙ্গে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী জানা গিয়েছে যে, ঘানা এখন তার টেলিকম ক্ষমতার আরও ভালো ব্যবহার করতে চায়। পাবলিক সেক্টরের নেক্সট-জেন ইনফ্রাস্ট্রাকচার কোম্পানি (NGIC) Reliance Jio-র সহযোগী সংস্থা Radisys, Tech Mahindra এবং Nokia-র সাথে অংশীদারিত্ব করেছে। এর উদ্দেশ্য হল দেশে সাশ্রয়ী মূল্যের 5G মোবাইল ব্রডব্যান্ড পরিষেবার জন্য প্রয়োজনীয় পরিকাঠামো তৈরি করা। এদিকে, NGIC-কে 5G স্পেকট্রাম বরাদ্দ করা হয়েছে এবং স্থানীয় টেলিকম কোম্পানিগুলি আগামী ছয় মাসের মধ্যে পরিষেবা চালু করার জন্য শেয়ার্ড পরিকাঠামো ব্যবহার করবে। রিপোর্ট অনুসারে, এই চুক্তির মোট মূল্য ২০ কোটি ডলারেরও বেশি।

In addition to India, Reliance Jio will provide services in this country.

ঘানা ভারতের প্রশংসা করেছে: পশ্চিম আফ্রিকার এই দেশের যোগাযোগ ও ডিজিটালাইজেশন মন্ত্রী উরসুলা ওউসু-ইকুফুল (Ursula Owusu-Ekuful) বলেছেন যে, “ভারত এই প্রকল্পের জন্য আমাদের ‘কৌশলগত পছন্দ’। কারণ ঘানা এবং ভারতের জনসংখ্যা কমবেশি একই রকম। এছাড়াও, ভারত টেলিকম শিল্পে একটি সাফল্যের গল্প লিখেছে, আমরা এটি পুনরাবৃত্তি করতে চাই।” উরসুলা বলেন, “ভারতের জনসংখ্যা ঠিক আমাদের মতো। মাত্র কয়েক বছর আগে শুরু হওয়া Jio মডেল ভারতের টেলিকম সেক্টরের দিক এবং অবস্থা বদলে দিয়েছে। সুতরাং, সেই মডেলটি এখনও অত্যন্ত সময়োপযোগী এবং আমরা ঘানায় এই সাফল্যের পুনরাবৃত্তি করতে পারি।”

আরও পড়ুন: IPL জেতার পর কোন স্বপ্ন পূরণ করতে চান রিঙ্কু? নিজেই জানালেন KKR-এর তারকা খেলোয়াড়

চিনের পরিবর্তে ভারতকে বেছে নিয়েছে: উরসুলা জানান, “ঘানা ৩৩ টি দেশের স্মার্ট আফ্রিকা জোটের অংশ। এই পরিস্থিতিতে, মহাদেশের অন্যান্য দেশগুলিও এই পরিকাঠাম প্রকল্পের ওপর কড়া নজর রাখবে। কারণ তারা জানতে চায় এই মডেলটি তাদের দেশেও বাস্তবায়িত হতে পারে কি না।” ঘানার মন্ত্রীকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল যে ভারতীয় ভেন্ডাররা আগে কখনও এমন চুক্তি করেনি। অন্যদিকে চিনা সাপ্লায়ারদের এই ক্ষেত্রে অনেক অভিজ্ঞতা রয়েছে। তাই তারা কেন চিনের পরিবর্তে ভারতকে বেছে নিল? এর জবাবে উরসুলা বলেন, “ভারত আমাদের জন্য কৌশলগত বিকল্প ছিল। আমরা কোনো ভূ-রাজনীতিতে জড়াতে চাই না। আমরা আমাদের জাতীয় স্বার্থের জন্য সবচেয়ে ভালো চাই। আমাদের উদ্দেশ্য এই ক্ষেত্রে ভারতের অভিজ্ঞতার সদ্ব্যবহার করা।”

আরও পড়ুন: “T20 বিশ্বকাপে টিম ইন্ডিয়ার পরিবর্তে….”, KKR চ্যাম্পিয়ন হতেই বড় প্রতিক্রিয়া দিলেন সৌরভ

ইলন মাস্কের সাথেও কথোপকথন: ঘানার মন্ত্রী বলেন যে, “আমরা আমাদের টেলিকম সেক্টর উন্নত করতে 4G এবং 5G নেটওয়ার্কের সাথে স্যাটেলাইট সংযোগের কথাও বিবেচনা করছি।” তিনি বলেছেন এই বিষয়ে ইলন মাস্কের স্টারলিঙ্কের সাথেও আলোচনা চলছে। জানিয়ে রাখি যে, ভারতে Jio-র প্রতিদ্বন্দ্বী, Bharti Airtel আফ্রিকা মহাদেশের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ মোবাইল নেটওয়ার্ক অপারেটর হিসেবে বিবেচিত হয়।

Sayak Panda
Sayak Panda

সায়ক পন্ডা, মেদিনীপুর কলেজ (অটোনমাস) থেকে মাস কমিউনিকেশন এবং সাংবাদিকতার পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কোর্স করার পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। ২ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর