ভাঙছে ১৪৫ বছরের রেকর্ড! আরোও তাড়াতাড়ি পৌঁছবে দার্জিলিং মেল, কমবে প্রচুর সময়; জানাল রেল

বাংলাহান্ট ডেস্ক : ভারতীয় রেলের ইতিহাসে অন্যতম একটি ট্রেন দার্জিলিং মেল। এই ট্রেন এবার নতুন রেকর্ড সৃষ্টি করতে চলেছে। যাত্রীরা আগে ভাবতেও পারেননি এমনটা আদৌ হতে পারে। হাওড়া ও শিয়ালদহ স্টেশন থেকে প্রতিদিন অসংখ্য ট্রেন উত্তরবঙ্গের উদ্দেশ্যে যায়। তবে এগুলির মধ্যে বিশেষ কিছু ট্রেন রয়েছে যেগুলোতে চড়তে যাত্রীরা ভালোবাসেন।

   

হাওড়া-নিউ জলপাইগুড়িগামী বন্দে ভারত এক্সপ্রেস ইদানিং বেশ জনপ্রিয় যাত্রীদের কাছে। অনেকে যাত্রী এই ট্রেনে সফর করতে ভালোবাসেন। তবে অন্য মেল বা দূরপাল্লার ট্রেনের থেকে বন্দে ভারতের ভাড়া অনেকটাই বেশি। উত্তরবঙ্গের উদ্দেশ্যে দার্জিলিং মেল, পদাতিক এক্সপ্রেস সহ একাধিক ট্রেন যায়। এই ট্রেনগুলোর মধ্যে যাত্রীদের বেশ পছন্দ দার্জিলিং মেল।

আরোও পড়ুন : পর্যটন মানচিত্র নিয়ে নয়া প্ল্যান মুখ্যমন্ত্রীর! ৪০০টি ধর্মস্থান নিয়ে এবার বড়সড় ঘোষণা মমতার

এবার এই দার্জিলিং মেল নিয়ে উঠে আসছে বড় খবর। জানা যাচ্ছে ২০১৪ সাল থেকে দার্জিলিং মেল সম্পূর্ণ বিদ্যুৎ চালিত ইঞ্জিনে ছুটবে। উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলওয়ের (এনএফআর) ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা পরিদর্শন করে গেছেন জলপাইগুড়ি ও আলিপুরদুয়ার জেলার বিভিন্ন স্থান। কর্মকর্তাদের একটি দল পরিদর্শন করে রানীনগর-জলপাইগুড়ি-হলদিবাড়ি রেলপথ, যেটি সংযুক্ত করবে বাংলাদেশকে।

আরোও পড়ুন : নয়া সিদ্ধান্তের পথে সরকার! অ্যাপ ছাড়াই কল আসলে নাম দেখা যাওয়া নিয়ে এবার বড় খবর

উত্তরবঙ্গের অধিকাংশ রেলপথেই সম্পূর্ণ হয়েছে বিদ্যুতায়ন। তবে এখনো বিদ্যুতায়ন বাকি জলপাইগুড়ি শহর হয়ে রানীনগর-জলপাইগুড়ি এবং হলদিবাড়ি পর্যন্ত বিস্তৃত ৩১ কিলোমিটার অংশটির। এক রেল আধিকারিক জানিয়েছেন, “এই রেল লাইন বৈদ্যুতিকরণের কাজ প্রায় শেষের পথে। বৈদ্যুতিক লোকোগুলি ৭ থেকে ১০ দিনের মধ্যে প্রসারিত হবে বলে আমাদের আশা।”

Darjeeling mail

এনএফআর-এর কাটিহার ডিভিশনাল রেলওয়ে ম্যানেজার সুরেন্দ্র কুমারের কথায়, “কাজের অগ্রগতি খতিয়ে দেখে আমরা পরিদর্শন করেছি সম্পূর্ণ জায়গাটি।” দার্জিলিং মেল, হলদিবাড়ি-কলকাতা এক্সপ্রেস এবং লোকাল প্যাসেঞ্জার ট্রেন এখনো পর্যন্ত ডিজেল ইঞ্জিনে চলাচল করে এখানে। বৈদ্যুতিকরণ এর কাজ শেষ হলে যাত্রীরা আরো কম সময় পৌঁছে যাবেন গন্তব্যে।