৪১ শ্রমিক উদ্ধারের আগে এই মন্দিরে পুজো! গত ৬ মাসে একমাত্র অস্ট্রেলিয়ান যে ভারতের মুখে ফুটিয়েছে হাসি

বাংলা হান্ট নিউজ ডেস্কঃ অবশেষে উত্তরকাশীর (Uttarkashi) সিল্কিয়ারা সুড়ঙ্গে (Silkyara Tunnel) আটকে পড়া ৪১ জন হতভাগ্য শ্রমিককে নিরাপদে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। দীর্ঘদিন অনিশ্চয়তায় ভরা জীবন কাটানোর পর এখন তারা খোলা হাওয়ায় নিঃশাস নিচ্ছেন। আজ অনেকেই অনেক বক্তব্য রাখবেন, কিন্তু ১৭ দিন ধরে চলা এই উদ্ধারকার্যের সাফল্য যাকে ছাড়া সম্ভব ছিল না, সেই আর্নল্ড ডিক্সকে (Arnold Dix) হয়তো অনেকেই ভুলে যাবেন।

কে এই আর্নল্ড ডিক্স?

   

এই শ্রমিকদের সুরক্ষা থেকে উদ্ধার করার কাজটিকে যারা নেতৃত্ব দিচ্ছিলেন তাদের মধ্যে অন্যতম একজন হলেন আর্নল্ড। পেশায় তিনি একজন ভূগর্ভস্থ এবং পরিবহন পরিকাঠামো বিশেষজ্ঞ। অতীতের এইরকম একাধিক ঘটনার মুখোমুখি হয়েছেন তিনি। কিন্তু খুব কম ক্ষেত্রেই উদ্ধারকার্য হয়তো এত কষ্টসাধ্য হয়েছিল।

এখনও নিজের মতামত জানাননি তিনি:

শোনা যাচ্ছে পরিবেশবিদ থেকে পরিবেশকর্মী এবং অনেক মুক্তমনা মানুষদের চিন্তাভাবনার বিরুদ্ধে গিয়ে উত্তরাখণ্ডে প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের চারধাম প্রকল্পের কাজ চলছিল বলে একটা গুজব নিন্দুকরা ছড়িয়ে দিচ্ছেন। সেই বিষয়টিতে কতটা সত্যতা রয়েছে তা এখনো জানা বাকি। আর্নল্ড হলেন জেনেভার আন্তর্জাতিক টানেলিং এবং আন্ডারগ্রাউন্ড স্পেস অ্যাসোসিয়েশনের প্রধান। তিনি এবং তার সংস্থা ভূগর্ভস্থ নির্মাণের জন্য আইনি, পরিবেশগত, রাজনৈতিক এবং অন্যান্য ঝুঁকির বিষয়ে পরামর্শ দিয়ে থাকেন। তিনি সরাসরি এই প্রকল্পের বিরুদ্ধে কোন মন্তব্য করেননি শুধু এটুকুই বলেছেন যে পাহাড় মাঝে মাঝে মানুষকে নম্র হতে শেখায়।

আরও পড়ুন: IPL-এ অধিনায়ক হয়ে মন জিতলেন শুভমান গিল! ২৬/১১-র শহীদদের পরিবারকে যা বললেন শুনলে অবাক হবেন

অজি উদ্ধারকর্মীর পুজো:

তবে শ্রমিক যেদিন বার করে আনা হলো নিরাপদে সেদিন তার একটি কর্মকাণ্ড সকলের নজর কেড়েছে। আর্নল্ড ডিক্স মঙ্গলবার সকালে এই কাজ যাতে সফলভাবে সম্পূর্ণ করা যায় সেই ইচ্ছা নিয়ে পুজো করেছিলেন। তিনি উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী পুষ্কর সিং ধামির সঙ্গে বাবা বউখনাগের পুজো করেছিলেন। সুড়ঙ্গের ঠিক উপরেই বাউখনাগ দেবতার মন্দির অবস্থিত। সেখানে তার পুজো করার ছবি ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল।

arnold puja

আরও পড়ুন: বর্ষাপাড়ায় ম্যাক্সওয়েল ঝড়! অক্ষর, কৃষ্ণদের ধ্বংস করে রেকর্ড সেঞ্চুরিতে ভারতকে উপহার দিলেন লজ্জার হার

একমাত্র অস্ট্রেলিয়ান, যিনি মুখে হাসি ফুটিয়েছেন:

ভারতের মাটিতে ক্রিকেট খেলাটি অত্যন্ত জনপ্রিয় হওয়ায় গত ছয় মাসের মধ্যে দুইবার অস্ট্রেলিয়ানরা ভারতীয় ভক্তদের মন ভেঙে দিয়েছে। বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনাল এবং ভারতের মাটিতে আয়োজিত বিশ্বকাপ ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার কাছেই হার মানতে হয়েছিল ভারতীয় দলকে। এমনকি কাল যখন ৪১ জন শ্রমিককে উদ্ধার করা হয় তখন আসামের বর্ষাপাড়ায় তারকা অজি ক্রিকেটার গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের দাপুটে শতরানে ভর করে অস্ট্রেলিয়া ভারতকে টি-টোয়েন্টি সিরিজের তৃতীয় ম্যাচে হারিয়েছে। তাই অনেকে বলছেন আর্নল্ড হলেন এমন একজন অস্ট্রেলিয়ান যিনি গত কয়েক মাসের মধ্যে প্রথমবার ভারতীয়দের মুখে হাসি ফোটার সুযোগ করে দিয়েছেন। আর এইজন্য সকলে কৃতজ্ঞ থাকবে তার কাছে।