ভারতীয় পর্যটকদের জন্য সুখবর! এবার ভিসা ছাড়াই পোঁছে যান মাসাইমারা, হয়ে গেল বড় ঘোষণা

বাংলা হান্ট ডেস্ক: অ্যাডভেঞ্চার প্রেমী পর্যটকদের (Tourists) জন্য এবার একটি বড় খবর সামনে এসেছে। যেটি জানার পর রীতিমতো অবাক হয়ে যাবেন তাঁরা। শুধু তাই নয়, আপনিও যদি বিদেশ ভ্রমণের পরিকল্পনা করে থাকেন সেক্ষেত্রে এই খবরটি আপনাকে অবশ্যই আকৃষ্ট করবে। এই প্রসঙ্গে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী জানা গিয়েছে যে, আগামী বছর অর্থাৎ ২০২৪-এর ১ জানুয়ারি থেকেই আন্তর্জাতিক পর্যটকদের জন্য ভিসার (Visa) প্রয়োজনীয়তা সরিয়ে ফেলল কেনিয়া (Kenya)। এই গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপটি ওই দেশের পর্যটন ক্ষেত্রকে নিঃসন্দেহে ইতিবাচক ফল প্রদান করবে।

   

ইতিমধ্যেই এই ঘোষণাটি কেনিয়ার ৬০ তম স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে সম্পন্ন হওয়া একটি অনুষ্ঠানে সেখানকার প্রেসিডেন্ট উইলিয়াম রুটো ঘোষণা করেন। তিনি বলেন যে, “পৃথিবীর প্রতিটি প্রান্তের পর্যটকদের জন্যই আর কেনিয়ায় ভিসার জন্য আবেদনের বোঝার ভার বহন করতে হবে না।”

এদিকে, ওই দেশে প্রবেশের প্রক্রিয়া সহজ করার জন্য, কেনিয়া ইলেকট্রনিক ট্রাভেল অনুমোদনের জন্য একটি ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম চালু করছে। যা ভিসা আবেদনের প্রয়োজনীয়তাকে দূর করবে। এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখি যে, কেনিয়ার সরকার পূর্বে অন্যান্য আফ্রিকান ইউনিয়ন (AU) সদস্য রাষ্ট্রের নাগরিকদের জন্য ভিসার সীমাবদ্ধতা তুলে নিয়েছিল। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, চলতি বছরের শুরুতে মালয়েশিয়া, শ্রীলঙ্কা, থাইল্যান্ড এবং ভিয়েতনামও ভিসামুক্ত ভ্রমণের প্রচলন শুরু করে।

কেনিয়াতে আপনার জন্য অপেক্ষা করছে কি কি আকর্ষণ: কেনিয়ার সবচেয়ে বড় আকর্ষণ হল মাসাই মারা সাফারি। এছাড়াও, আপনি সিম্বা সাফারি, টেম্বো সাফারি, টুইগা সাফারি এবং অন্যান্য পর্যটন স্থলগুলিও ঘুরে দেখতে পারেন।

আরও পড়ুন: এই ৮ টি দেশে আপনি ভারতীয় লাইসেন্স দিয়েই চালাতে পারবেন গাড়ি! সাত নম্বর নামটি চমকে দেবে

মাসাইমারা: উল্লেখ্য যে, মাসাই মারা হল একটি ন্যাশনাল রিজার্ভ। যেটি দক্ষিণ-পশ্চিম কেনিয়ার একটি ওয়াইল্ড লাইফ ডেস্টিনেশন হিসেবে বিবেচিত হয়। মনোমুগ্ধকর প্রাকৃতিক দৃশ্য এবং প্রচুর বন্যপ্রাণী দ্বারা জায়গাটি পরিবেষ্টিত রয়েছে। যা পর্যটকদের দর্শনীয় অভিজ্ঞতার সম্মুখীন করে।

আরও পড়ুন: আধার আপডেটে বেনিয়ম করলেই ৫০ হাজার টাকা ফাইন! নয়া নিয়ম জারি UIDAI-র

সিম্বা সাফারি: সিম্বা সাফারির নামকরণ করা হয়েছে সোয়াহিলি শব্দ অনুসারে। যেটির মানে হল ‘সিংহ”। আপনি যদি “বিগ ক্যাট” দেখার আশা করেন সেক্ষেত্রে এটি নিঃসন্দেহে গুরুত্বপূর্ণ ডেস্টিনেশন। এই সাফারিটি অ্যাম্বোসেলিতে শুরু হয়। যেখানে আপনি মাউন্ট কিলিমাঞ্জারোর একটি ঝলক দেখতে পাবেন। তারপরে নাকুরু হ্রদের মধ্য দিয়ে ফ্লেমিংগো পাখি দেখতে দেখতে আপনি অবশেষে পৌঁছে যাবেন মাসাই মারার সমভূমিতে।

Now you can go to Masai Mara without a visa

টেম্বো সাফারি: এই সাফারির মাধ্যমে আপনি মাত্র ২ সপ্তাহে কেনিয়ার বৈচিত্র্যময় প্রাকৃতিক দৃশ্য এবং সংস্কৃতিকে ভালোভাবে প্রত্যক্ষ করার সুযোগ পাবেন। নাইরোবি থেকে শুরু করে, আবেরদারের জঙ্গলের মধ্য দিয়ে, সাম্বুরু এবং শাবা রিজার্ভের বন্য ভূখণ্ডে পৌঁছে যাওয়া যাবে এই সাফারিতে।