বিদ্যুৎ বিপর্যয় পাকিস্তানে! অন্ধকারে ডুবল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, বাতিল হল ২৬ টি বিমান

বাংলা হান্ট ডেস্ক: এবার ফের একটি চাঞ্চল্যকর ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে খবরের শিরোনামে উঠে এলো পাকিস্তান (Pakistan)। জানা গিয়েছে যে, পাকিস্তানের করাচিতে (Karachi) জিন্নাহ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (Jinnah International Airport) বেশ কয়েক ঘন্টা ধরে সম্পূর্ণ অন্ধকারে নিমজ্জিত থাকল। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শর্ট সার্কিটের কারণে বিমানবন্দরে হঠাৎ বিদ্যুৎ চলে যায়। যার ফলে রাতভর বিমানবন্দরের অধিকাংশ এলাকা অন্ধকারে থাকে।

   

এই প্রসঙ্গে পাকিস্তানের সিভিল এভিয়েশন অথরিটির (PCAA) একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, ওইদিন বিকেল ৫ টা নাগাদ পাওয়ার টানেল বেসমেন্ট টার্মিনাল বিল্ডিংয়ের কাছে শর্ট সার্কিটটি ঘটে। ওই কারণে বিমানবন্দরে বিদ্যুৎ পরিষেবা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। এদিকে, বিদ্যুৎ বিপর্যয়ের ঘটনা ঘটতেই বিমানবন্দরের কর্মীরা কাজ শুরু করেন। প্রায় ৫ ঘণ্টা পর বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক হয়।

এআরওয়াই নিউজের রিপোর্টে বলা হয়েছে, ডোমেস্টিক স্যাটেলাইট এরিয়া ছাড়া বেশিরভাগ জায়গায় কিছুক্ষণ পরে বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু করা হয়েছিল এবং অপারেশনাল লাইটগুলিও রাতে কাজ শুরু করেছিল। যদিও, বেশ কিছু অংশ গভীর রাত পর্যন্ত অন্ধকারে নিমজ্জিত ছিল। PCAA মুখপাত্রের মতে, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জিন্নাহ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বেশ কয়েকটি বিমান বাতিল করতে হয়েছে। তবে, বর্তমানে সমস্ত বিমান কোনো বাধা ছাড়াই চলছে।

আরও পড়ুন: স্নাতক পাশ হলেই মিলবে দেড় লক্ষ টাকার বেতনের চাকরি! জারি হল বিজ্ঞপ্তি, এভাবে করুন আবেদন

২৬ টি বিমান বাতিল হয়: মূলত, গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় হঠাৎ বিদ্যুৎ বিভ্রাটের কারণে বিমানবন্দরের কার্যক্রম ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বিদ্যুৎ বিভ্রাটের জেরে সন্ধ্যায় চেক-ইন এবং ইমিগ্রেশন কাউন্টারে দীর্ঘ লাইন এবং বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়। সবথেকে উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, ওই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ৬ টি আন্তর্জাতিক এবং ২০ টি অভ্যন্তরীণ বিমান বাতিল করা হয়েছে এবং বেশ কয়েকটি বিমান দেরিতে উড়েছে। PCAA তার বিবৃতির মাধ্যমে এই ঘটনার জন্য সমস্ত যাত্রীদের অসুবিধার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছে। পাশাপাশি, জানানো হয়, “আমাদের দলগুলি জরুরি ভিত্তিতে বিদ্যুৎ সরবরাহ পুনরুদ্ধারের জন্য কাজ করছে।”

আরও পড়ুন: এই ৮ টি দেশে আপনি ভারতীয় লাইসেন্স দিয়েই চালাতে পারবেন গাড়ি! সাত নম্বর নামটি চমকে দেবে

PCAA-এর মতে, যে এলাকায় শর্ট সার্কিট ঘটেছে সেখানে বিমানবন্দরের মূল বিদ্যুৎ পরিকাঠামো রয়েছে। যেটি রয়েছে যাত্রী টার্মিনাল থেকে কিছুটা দূরে। ক্রু-রা সম্পূর্ণরূপে বিদ্যুৎ পুনরুদ্ধারের জন্য কাজ শুরু করলেও সামগ্রিক প্রক্রিয়াটি কয়েক ঘন্টা সময় নিয়ে নেয়। এমন পরিস্থিতিতে, ক্রিটিক্যাল পাওয়ার সিস্টেমের হঠাৎ ব্যর্থতার কারণ অনুসন্ধান শুরু করেছে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ।