৪০ বছর পর গ্রিসে ভারতের প্রধানমন্ত্রী, হতে পারে এই চুক্তি! মোদির সিদ্ধান্তে আতঙ্কে পাকিস্তান-তুরস্ক

বাংলা হান্ট ডেস্ক : দেখতে দেখতে কেটে গিয়েছে ৪০টা। এত বছর পরে গ্রিসের (Greece) মাটিতে পা পড়ল কোনও ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীর। এর আগে ১৯৮৩ সালে গ্রিস সফরে গিয়েছিলেন দেশের তদানীন্তন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী (Indira Gandhi)। ৪০ বছর পর কোনও ভারতীয় রাষ্ট্রপ্রধানের গ্রিস সফর বর্তমান ভূরাজনৈতিক পরিস্থিতিতে (Geo-Political Situation) ভূমধ্যসাগরীয় দেশটির গুরুত্ববৃদ্ধির লক্ষণ বলেই মনে করা হচ্ছে।

মোদির সফর কি রাজনৈতিক ভাবে গুরুত্বপূর্ণ? দক্ষিণ আফ্রিকার জোহানেসবার্গে ব্রিকস সম্মেলন শেষে শুক্রবার গ্রিসের রাজধানী আথেন্সে পৌঁছলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সদ্য ব্রিকস সম্মেলন থেকে ফেরার পথেই এখানে এসেছেন তিনি। তাঁর এই সফরকে দুই দেশের সম্পর্কের জন্য গুরুত্বপূর্ণ বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

স্বাগত জানান গ্রিসের প্রধানমন্ত্রী : এদিন মোদি (PM Narendra Modi) বিমানবন্দর থেকে হোটেলে পৌঁছলে তাঁকে স্বাগত জানাতে গ্রিসের ভারতীয় সম্প্রদায়ের একাংশ উপস্থিত হন সেখানে। পরে এথেন্সের হোটেল গ্রেনেড ব্রেটাগনে-তে পৌঁছনোর ভারতীয় সম্প্রদায়ের সঙ্গে কথা বলতে দেখা যায় মোদিকে। ভিড়ের মধ্যে ছিল শিশুরাও। তাদের সঙ্গে হাসিমুখে কথা বলছিলেন প্রধানমন্ত্রীকে। একবার তাঁর সঙ্গে করমর্দন করতে বহু মানুষ একসঙ্গে হাত বাড়িয়ে দেন।

আলোচনা হল একাধিক বিষয়ে : এথেন্সে বসবাসকারী এক ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার সময় জানান, ‘ভারতীয় সম্প্রদায় এখানে মোদিকে স্বাগত জানাতে এসেছেন। মোদির সঙ্গে গ্রিসের প্রধানমন্ত্রীর বৈঠক হলে বাণিজ্য ও শরণার্থীর মতো ইস্যু নিয়ে কথা হলে দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক আরও মজবুত হবে।’

আরও পড়ুন : লোকসভা ভোটের হাতে গরম খবর! সমীক্ষার রিপোর্ট ঘিরে চাঞ্চল্য, এই দলই পাল্টে দেবে সব হিসাব

গর্বিত নমো : দক্ষিণ আফ্রিকায় রওনা হওয়ার আগেই গ্রিস সফর সম্পর্কে মুখ খুলেছিলেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি জানান, ‘গ্রিসে এটা আমার প্রথম সফর হবে। দীর্ঘ ৪০ বছর পর ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী হিসাবে আমি সেখানে পা রাখব। আমি খুব সম্মানিত ও গর্ববোধ করছি।’

Avatar
Sudipto

সম্পর্কিত খবর