হিন্দু নাবালিকাকে জীবন্ত পুড়িয়ে হত্যা! দেড় বছর পর দোষী সাব্যস্ত শাহরুখ

বাংলা হান্ট ডেস্ক : ঘটনাটা একটু পুরনো, তবে সেই ঘটনা পুরো দেশকে স্তম্ভিত করে রেখে দেয়। আজ থেকে প্রায় দেড় বছর আগেকার এই নির্মম কাহিনী। এক ১৬ বছর বয়সী হিন্দু মেয়েকে (Hindu Minor Girl) পুড়িয়ে মেরে ফেলে শাহরুখ। অবশেষে তাকে আদালতে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। আগামী ২৪ মার্চ তার শাস্তি ঘোষণা করা হবে। এই ঘটনায় শাহরুখের (Shahrukh Hussain) সাথে সাথে তার বন্ধু নাঈমকেও দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে।

   

জানা যায় এই নাঈমই নাকি শাহরুখকে পেট্রোল এনে দেয়। তাই দুজনের বিরুদ্ধেই মামলা রুজু করা হয়। পকসো ধারায় মামলা দায়ের করা হয়। আর এই মামলার দায়িত্বে ছিলেন SP সহ ১২ জনের একটি বিশেষ দল। পুরো মামলায় ১১২ পাতার চার্জশিট ফাইল করা হয় এবং তারপর অভিযোগ তৈরি করে সাক্ষীদের বয়ান নেওয়া হয়। মর্মান্তিক এই ঘটনার দেড় বছর পর অবশেষে ২০২৪ সালের ১৯ মার্চ আদালতে মামলার শুনানি হয়। সেখানেই দোষী সাব্যস্ত হয় শাহরুখ এবং নাঈম। 

ঠিক কী ঘটেছিল ?

ঘটনাটি ঘটে ২৩ আগস্ট ২০২২-এর সকালে। ঝাড়খণ্ডের দুমকার এক নাবালিকা হিন্দু মেয়েকে ঘুমের মধ্যে পুড়িয়ে মেরে ফেলার চেষ্টা করে শাহরুখ। আশঙ্কাজনক অবস্থাতেও তার সঙ্গে ঘটে যাওয়া সমস্ত বিবরণ নিজেই ঐ কিশোরী নিজেই জানিয়ে দেন। কিশোরী জানায় যে, শাহরুখ তাকে মুসলিম ধর্মে ধর্মান্তরিত হওয়ার জন্য চাপ দেয়। তিনি রাজি না হওয়ায় প্রতিবেশী শাহরুখ তাকে প্রতিনিয়ত হেনস্থা করতো। তিনি সেকথা না শুনলে তাকে হত্যার হুমকি দেয় শাহরুখ।

আরও পড়ুন : পিছিয়ে গেল ‘জগদ্ধাত্রী-নিম ফুলের মধু’, ভোটের বাজারে TRP তে বিরাট চমক

মেয়েটির ওপর শাহরুখের নৃশংস এবং বর্বর হামলা করার একদিন আগে সে তার বাবার কাছে শাহরুখের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে। আর তার পরদিন সকালে যখন তার ঘুম ভাঙে তখন জানালা দিয়ে তার সারা শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয় শাহরুখ। মেয়েটি তৎক্ষণাৎ ছুটে যায় তার বাবার কাছে, সেখানে অনেক কষ্টে আগুন নেভালেও হাসপাতালে নিয়ে গেলে জানা যায় যে, তার শরীরের 90 শতাংশই পুড়ে গিয়েছে।

আরও পড়ুন : ‘মোদী ম্যাজিকে মুগ্ধ’, BJP-র জয় নিয়ে নিশ্চিত পুতিন-জেলেনস্কি! পাঠালেন বিশেষ আমন্ত্রণ

এরপর ডাক্তারদের অনেক চেষ্টার পরও আর তাকে সুস্থ করা যায়নি। ধীরে ধীরে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন নাবালিকা তরুণী। শরীর প্রচন্ড পুড়ে যাওয়ার কারণে আর বেঁচে উঠতে পারেনি সেই তরুণী। তবে যাওয়ার আগে তার একটাই চাওয়া ছিল, কাঁদতে কাঁদতে তরুণী বলে যায়, যে তার এই হাল করেছে সেও যেন এমনই মৃত্যুবরণ করে।

Moumita Mondal
Moumita Mondal

মৌমিতা মণ্ডল, গ্র্যাজুয়েশনের পর শুরু নিয়মিত লেখালেখি। বিগত ৩ বছরেরও বেশি সময় ধরে লেখালেখির সাথে যুক্ত। প্রায় ২ বছর ধরে বাংলা হান্ট-এর কনটেন্ট রাইটার হিসেবে নিযুক্ত।

সম্পর্কিত খবর