সিঙারা বেচতেন বাবা! প্রথম রোজগার ছিল ৫০ টাকা! আজ একটা গান গাইতেই নেন ১৫ লাখ! চেনেন গায়িকাকে?

বাংলাহান্ট ডেস্ক : বিনোদন জগৎ মানে এক স্বপ্নের দুনিয়া। এই দুনিয়ায় যারা প্রতিষ্ঠিত তাদের দেখে আমরা ভাবি যে কতই না সহজ তাদের কাজ! নাম-যশ-খ্যাতির পিছনে বহু মানুষই দৌড়ান। তবে সবার ভাগ্যে এসব থাকে না। সফলতা পাওয়ার জন্য দরকার হয় পরিশ্রমের আর প্রতিভার। আজ আমরা এমন এক গায়িকাকে (Singer) নিয়ে আলোচনা করছি যার ছোটবেলা কেটেছে অত্যন্ত সংঘর্ষ করে।

এই গায়িকার বাবা সিঙারা বিক্রি করতেন। আমরা যে গায়িকা সম্পর্কে আলোচনা করছি তাঁর জীবনে একটা সময় রোজগার ছিল প্রতিদিন মাত্র ৫০ টাকা। তবে এই গায়িকা আজ একটি গান রেকর্ড করার জন্য লক্ষ লক্ষ টাকা নিয়ে থাকেন। কথা হচ্ছে নেহাকে নিয়ে। নেহা কক্কর (Neha Kakkar) আজ বলিউডের অন্যতম সফল গায়িকা। একের পর এক হিট গান দিয়ে জয় করে নিয়েছেন শ্রোতাদের মন।

আরোও পড়ুন : ক্লাস ফাঁকি দিয়ে স্কুল ছুটের দিন শেষ! কড়া ব্যবস্থা নিচ্ছে রাজ্য সরকার, কবে থেকে শুরু নতুন নিয়ম?

তবে এই জায়গায় নেহা কিন্তু সহজে পৌঁছাননি। তাঁর সফলতার পিছনে রয়েছে এক সুবিশাল সংঘর্ষের কাহিনী। ৩৫ বছরের নেহা বর্তমানে একটি গানের জন্য ১৫ লক্ষ টাকা পারিশ্রমিক নেন। তবে একটা সময় নেহা বিয়ের অনুষ্ঠানে, ভজনে গান গেয়ে অর্থ উপার্জন করতেন। নেহা কক্কর জন্মগ্রহণ করেন উত্তরাখণ্ডের ঋষিকেশে ৬ জুন ১৯৮৮ সালে।

আরোও পড়ুন : ক্রমেই কমে চলেছে বাংলাদেশের হিন্দু জনসংখ্যা! কারণ কী? সামনে এল ভয়ঙ্কর রিপোর্ট

নেহার গানের স্বপ্ন পূরণের জন্য ১৯৯০ সাল নাগাদ তাঁর পরিবার চলে আসে দিল্লিতে। নেহা মাত্র চার বছর বয়স থেকে বিভিন্ন স্থানীয় অনুষ্ঠান ও ধর্মীয় অনুষ্ঠানে গান গাইতে শুরু করেন। নবরাত্রির চৌকিতে ভাই এবং বোন সোনু কক্কর এবং টনি কক্করের সাথে অনুষ্ঠান করতেন নেহা। এই অনুষ্ঠান করে পেতেন প্রতিদিন মাত্র ৫০ টাকা করে।

Neha Kakkar Sang “Channa Mereya” For Her Ex Boyfriend On Indian Idol Season 11

২০০৪ সালে নেহা ভাই টনির সাথে চলে আসেন মুম্বাই। এরপর ইন্ডিয়ান আইডলে অডিশন দিলে সেখান থেকে প্রত্যাখ্যাত হন। তবে আজ নেহা বলিউডের অন্যতম ধনী গায়িকা। দারিদ্রতা ও প্রতিবন্ধকতা যে কখনো স্বপ্ন পূরণের পথে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারে না, সেটাই প্রমাণ করে দেখিয়েছেন এই গায়িকা।

Avatar
Soumita

আমি সৌমিতা। বিগত ৩ বছর ধরে কর্মরত ডিজিটাল সংবাদমাধ্যমে। রাজনীতি থেকে শুরু করে ভ্রমণ, ভাইরাল তথ্য থেকে শুরু করে বিনোদন, পাঠকের কাছে নির্ভুল খবর পৌঁছে দেওয়াই আমার একমাত্র লক্ষ্য।

সম্পর্কিত খবর