২ বছর আগের ঝামেলা নিয়ে ফের সরগরম ভারতীয় ক্রিকেট! কোহলিকে মিথ্যাবাদী প্রমাণের চেষ্টা সৌরভের?

বাংলা হান্ট নিউজ ডেস্কঃ ভারতীয় ক্রিকেটের দুই প্রাক্তন কিংবদন্তি অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় (Sourav Ganguly) এবং বিরাট কোহলির (Virat Kohli) মধ্যে সম্পর্কের শীতলতা নিয়ে নানান জল্পনা চলছে গত দুই বছর ধরেই। মাঝেমধ্যে দুই ভারতীয় দলের (Indian Cricket Team) মহাকারকা একে অপরের মুখোমুখি আসলে সেই শীতলতা ধরা পড়েছে। আবার কখনোই দুজনেই সৃষ্টিশীলতার পরিচয় দিয়ে একে অপরের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন। কিন্তু অবশেষে রিয়্যালিটি শো দাদাগিরির (DadaGiri)মঞ্চে আসলে কি হয়েছিল সেই ঘটনা ফাঁস করলেন সৌরভ।

   

ভারতীয় দল আর কিছুদিনের মধ্যেই দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে উড়ে যাবে। মজার ব্যাপার হল এই ঘটনাটি ও দুই বছর আগে ঘটেছিল ঠিক দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে কোহলিদের উড়ে যাওয়ার আগে। সকলেই জানেন যে ২০২১ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শুরু হওয়ার আগে বিরাট কোহলি জানিয়ে দিয়েছিলেন যে এই ফরম্যাটে অধিনায়ক হিসেবে ওই টুর্নামেন্টের হতে চলেছে তার শেষ টুর্নামেন্ট। সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ও বিসিসিআইয়ের অন্যান্য আধিকারিকরা তাকে এই সিদ্ধান্ত পুনঃবিবেচনার জন্য অনুরোধ জানিয়েছিলেন বলে শোনা গিয়েছিল তখন।

যদিও দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে উড়ে যাওয়ার সময় বিরাট কোহলি ২০২১ সালের একদম শেষে জানিয়েছিলেন যে টি-টোয়েন্টি অধিনায়কত্ব ছাড়া নিয়ে তাকে আবার ভেবে দেখার জন্য কেউই অনুরোধ করেননি। সকলে একবারেই তার সেই সিদ্ধান্ত মেনে নিয়েছিল এবং ওডিআই অধিনায়ক হিসাবেও তিনি থাকছেন না এই বিষয়টিও তার সঙ্গে আলোচনা না করেই ঠিক করা হয়েছে।

সম্প্রতি একটি এপিসোডে সৌরভ সম্পর্কে এক বিশেষ ভিডিও চালানো হয়েছিল টিম আলোর কোলের তরফ থেকে। সেখানে সৌরভ সম্পর্কে এবং বিসিসিআইয়ে থাকার সময় সভাপতি হিসেবে তার নেওয়া বলিষ্ঠ সিদ্ধান্তগুলি সম্পর্কে নানান প্রশংসা সূচক মন্তব্য করা হয়। সেই ভিডিওতে বিরাট কোহলিকে অধিনায়কত্ব থেকে সরিয়ে রোহিত শর্মাকে অধিনায়কত্ব করায় সৌরভের অবদানের প্রসঙ্গটিও ছিল।

আরও পড়ুন: টাকাটাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ নয়! মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সে ফেরা হার্দিক পান্ডিয়াকে খোঁচা শুভমান গিলের

ভিডিওটি দেখার পর সৌরভ মন্তব্য করেন, “এখানে সমস্ত কিছু ঠিক বলা নেই। হলে টি-টোয়েন্টি অধিনায়কত্ব ছাড়ার ব্যাপারে আমার কোনও ভূমিকা ছিল না। কিন্তু আমি ওকে বলেছিলাম সাদা বলের ক্রিকেটে একজনই থাকুক অধিনায়ক। রোহিত প্রাথমিকভাবে রাজি হয়নি কারণ ও তিন ফরম্যাটের অধিনায়ক হতে চাইতো না। কিন্তু আমি কিছুটা জোর করায় শেষপর্যন্ত ও এই ব্যাপারে সায় দেয়।” তবে রোহিতের সফল অধিনায়ক হওয়ার পেছনে নিজে কোনও কৃতিত্ব নিতে চাননি সৌরভ। সেই সঙ্গে সমালোচকদের সমালোচনায় কানে না দিয়ে বিসিসিআই তাকে কঠিন সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্যই বিদ্যা সভাপতি করেছিল বলে জানান তিনি। নিজে যেটা মন থেকে ভাবছেন সেইটা করার বিষয়েও পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন: হাতে নেই কোহলি বা রোহিত! দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে মান বাঁচাতে BCCI-এর সবচেয়ে বড় ভরসা এই তারকা

যদিও সৌরভের এই বক্তব্য নিয়ে সন্তুষ্ট নন অনেকেই। অনেকের মতে বিশ্বকাপের পরে এই মুহূর্তে ক্রিকেট থেকে দূরে রয়েছেন বিরাট কোহলি। বিশ্বকাপ ফাইনালে ভালো খেলেও দলকে নিয়ে জেতাতে না পারার যন্ত্রণা, তার মনে বজায় রয়েছে পুরোপুরি ভাবে। এখন এইসব পুরনো কথাগুলো তুলে তাকে পরোক্ষভাবে মিথ্যাবাদী প্রমাণ করার চেষ্টা না করলেই হয়তো ভালো হতো।