রাম মন্দিরের হাত ধরে আরও চাঙ্গা হবে দেশের অর্থনীতি! উদ্বোধনেই হতে পারে ১,০০,০০০ কোটির ব্যবসা

বাংলা হান্ট ডেস্ক: এবার একটি অত্যন্ত বড় খবর সামনে এসেছে। এই প্রসঙ্গে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী জানা গিয়েছে যে, আগামী ২২ জানুয়ারি অযোধ্যার রাম মন্দিরে (Ayodhya Ram Mandir) রামলালার প্রাণ প্রতিষ্ঠা উপলক্ষ্যে ১ লক্ষ কোটি টাকার ব্যবসা হবে বলে অনুমান করা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই এই বিষয়ে ব্যবসায়ীদের সংগঠন কনফেডারেশন অফ অল ইন্ডিয়া ট্রেডার্স (CAIT) বিভিন্ন রাজ্যের ৩০ টি শহরের বাণিজ্য সমিতি থেকে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে এই অনুমান করেছে। CAIT-র সাধারণ সম্পাদক প্রবীণ খান্ডেলওয়াল জানিয়েছেন, “এই অনুষ্ঠানটি শুধুমাত্র ধর্মীয় অনুভূতির প্রতিধ্বনি ঘটাবে না বরং অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডেও ঢেউ এনে দেবে। মানুষের বিশ্বাস এখন দেশের ঐতিহ্যগত অর্থনৈতিক ব্যবস্থার ওপর ভিত্তি করে অনেক নতুন ব্যবসার জন্ম দিচ্ছে।”

   

তিনি জানান যে, রাম মন্দিরে প্রাণ প্রতিষ্ঠাকে সামনে রেখে সারা দেশে প্রায় ৩০,০০০ টি বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করছে ব্যবসায়ী সমিতিগুলি। এর মধ্যে রয়েছে বাজার মিছিল, শ্রী রাম চৌকি, শ্রী রাম সমাবেশ, শ্রী রাম পদযাত্রা, স্কুটার এবং গাড়ির র‍্যালি এবং শ্রী রাম সভা। এদিকে, বাজারে রাম মন্দিরের ছবি সম্বলিত শ্রী রাম পতাকা, ব্যানার, টুপি, টি-শার্ট ও কুর্তার ব্যাপক চাহিদা দেখা যাচ্ছে।

খান্ডেলওয়াল বলেন, “রাম মন্দিরের মডেলের চাহিদাও দ্রুত বৃদ্ধি পেয়েছে এবং আশা করা হচ্ছে যে সারা দেশে পাঁচ কোটিরও বেশি মডেল বিক্রি হবে। এর জন্য, বিভিন্ন রাজ্যের একাধিক শহরে ছোট ছোট উৎপাদন ইউনিট স্থাপন করা হচ্ছে। যেগুলি দিন-রাত এক করে কাজ করছে।”

The country's economy will advance through the Ram temple

খান্ডেলওয়াল আরও দাবি করেছেন যে,আগামী সপ্তাহে, দিল্লির ২০০ টিরও বেশি বড় বাজার এবং বিপুলসংখ্যক ছোট বাজারে শ্রী রাম পতাকা দেখা যাবে। দিল্লিতে সংগঠিত অনুষ্ঠানগুলি সম্পর্কে বিশদ বিবরণ দিয়ে খান্ডেলওয়াল জানান যে, আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে দিল্লির বাজারে ২০০ টিরও বেশি শ্রী রাম সংবাদ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে। পাশাপাশি, ১,০০০ টিরও বেশি শ্রী রাম চৌকি, শ্রী রাম কীর্তন, শ্রী সুন্দরকাণ্ড পাঠ, ২৪ ঘন্টা অবিরাম রামায়ণ পাঠ, ২৪ ঘন্টা প্রদীপ প্রজ্জ্বলন, ভজন সন্ধ্যা সহ বৃহৎ আকারের ধর্মীয় অনুষ্ঠান হবে।

আরও পড়ুন: আরে বাহ! এবার মাত্র 288 টাকায় মিলবে 120GB ডেটা, 2 মাসের জন্য খতম রিচার্জের টেনশন

খান্ডেলওয়াল আরও জানান যে, আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে, দিল্লির বাজারগুলিকে শ্রী রাম পতাকা এবং তার দিয়ে সজ্জিত করা হবে ও প্রতিটি বাজারে বৈদ্যুতিক আলো থাকবে। দিল্লির বিভিন্ন বাজারে ৩০০ টিরও বেশি শ্রী রাম ফেরি এবং শ্রী রাম পদযাত্রা অনুষ্ঠান হবে। একই সঙ্গে রাজধানীর সব মার্কেট ও ব্যবসায়ীদের দোকান এবং বাড়িতে মাটির প্রদীপ জ্বালানো হবে।

আরও পড়ুন: নতুন বছরেই বড় ঝটকা পেল আমজনতা! ডাল-সবজির ক্রমবর্ধমান দামে বৃদ্ধি হল পাইকারি মুদ্রাস্ফীতির হার

এমতাবস্থায়, বিভিন্ন অ্যাসোসিয়েশন তাদের সদস্যদের প্রদীপ প্রদান করছে। পাঁচ শতাধিক এলইডি ও সাউন্ড সিস্টেমও বসানো হবে। এর পাশাপাশি, ৩০০ টিরও বেশি জায়গায় ঢোল, তাসা বাজানো হবে এবং ১০০ টিরও বেশি শ্রী রাম শোভা যাত্রা বের করা হবে। সেখানে ঐতিহ্যবাহী পোশাকে মহিলারা তাঁদের মাথায় শ্রী রাম বহন করবেন। এছাড়াও, দিল্লির একাধিক বাজারে লোক নৃত্যশিল্পী এবং গায়কদের অনুষ্ঠান হবে। যার জন্য বৃন্দাবন এবং জয়পুর থেকে শিল্পীদের আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে।