বাবরের দেশ দিল রামলালার অভিষেকের জল! ইরান থেকে মুসলিম মহিলা, পাক থেকে পাঠালেন সিন্ধিরা

বাংলা হান্ট ডেস্ক: ইতিমধ্যেই অযোধ্যার রাম মন্দিরের (Ayodhya Ram Manidr) উদ্বোধনের প্রসঙ্গে জোরকদমে প্রস্তুতি পরিলক্ষিত হয়েছে। মহাসমারোহে সম্পন্ন হতে চলা এই মন্দিরের উদ্বোধনের জন্য কোনো খামতি রাখা হচ্ছে না। পাশাপাশি, চূড়ান্ত করা হয়েছে রামলালার মূর্তিটিও। যেটি আগামী ১৭ তারিখে প্রকাশ করা হবে। এদিকে, ওই একই দিনে নগর ভ্রমণের কর্মসূচিও রয়েছে। এমতাবস্থায়, সমগ্ৰ দেশজুড়ে আগামী ২২ জানুয়ারি ২০২৪-এ রামলালার প্রাণ-প্রতিষ্ঠা কর্মসূচির বিষয়টি আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছে।

   

সবথেকে উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, অযোধ্যায় রামলালার পুজোর জন্য মোগল শাসক বাবরের জন্মস্থান উজবেকিস্তান থেকেও জল আনা হয়েছে। হ্যাঁ, জেনে অবাক হয়ে গেলেও এটা কিন্তু একদমই সত্যি। শুধু তাই নয়, পাকিস্তান থেকে শুরু করে চিন, দুবাই এবং অ্যান্টার্কটিকার জল দিয়ে শ্রী রামকে পবিত্র করা হবে।

সারা বিশ্বের নদী থেকে আসছে জল: প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, চলতি বছরের এপ্রিলে, দিল্লির প্রাক্তন বিজেপি বিধায়ক বিজয় জলি ১৫৫ টি দেশ থেকে আনা পবিত্র জল নিয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নীতিন গড়করির সাথে দেখা করেছিলেন। ইতিমধ্যেই সেই ছবি প্রকাশ্যে এসেছিল। গড়করি ওই বিষয়কে “ঐতিহাসিক” হিসেবে বিবেচিত করেন। জল নিয়ে আসা ওই কলসিটির দিকে তাকালেই দেখা যাবে যে, সেখানে চিন, লাওস, লাটাভিয়া, মায়ানমার, মঙ্গোলিয়া, সাইবেরিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া সহ আরও একাধিক দেশের নামের স্টিকার রয়েছে। অর্থাৎ, এতগুলি দেশ থেকে এসেছে জল।

আরও পড়ুন: উন্নত প্রযুক্তিই বাড়াচ্ছে চিন্তা! হাইকোর্টের কয়েক হাজার ল ক্লার্ক করছেন চাকরি হারানোর আশঙ্কা

সৌদি থেকে পাঠিয়েছেন হিন্দুরা, পাকিস্তান থেকে পাঠিয়েছেন সিন্ধিরা: বিজয় জলি দাবি করেছেন, মোট ১৫৫ টি দেশের জল সংগ্রহের কাজে সব ধর্মের মানুষ সহযোগিতা করেছেন। হিন্দুরা সৌদি আরব থেকে জল পাঠিয়েছে আর মুসলিম মহিলারা ইরান থেকে জল পাঠিয়েছে। তাজ মোহাম্মদ কাজাকিস্তান থেকে সেখানকার প্রধান নদী থেকে জল পাঠান। শিখ ভাইদের সহায়তায় কেনিয়া থেকে জল সংগ্রহ করা হয়। সিন্ধিরা অত্যন্ত সাবধানে পাকিস্তান থেকে অযোধ্যায় জল পাঠিয়েছে।

আরও পড়ুন: মাত্র ১০০ টাকায় করা যাবে বিনিয়োগ! টাটা গ্রুপ সামনে আনল দুর্দান্ত স্কিম, এভাবে হবেন লাভবান

জলি জানান, কয়েকদিন আগে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের পৃষ্ঠপোষক বোর্ডের সদস্য দীনেশ চন্দ্রের হাতে জল ভর্তি একটি বড় কলসি হস্তান্তর করা হয়েছিল। এই জলই ব্যবহার করা হবে প্রাণ প্রতিষ্ঠার অনুষ্ঠানে।