টাইমলাইনআন্তর্জাতিক

অমানবিক! হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত মহিলা কয়দিকে ঝোলানো হল ফাঁসিতে

বাংলা হান্ট ডেস্কঃ ইরান থেকে এক অমানবিক খবর প্রকাশ্যে আসছে। সেখানে এক মহিলাকে স্বামীর হত্যার অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছিল। এবং সেই মহিলাকে ফাঁসির সাজা দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু ফাঁসির আগেই হার্ট অ্যাটাকে মৃত্যু হয় মহিলার। কিন্তু এরপরেও মহিলাকে ফাঁসিতে ঝোলানো হয়। প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, ওই মহিলার স্বামী ইরানের গোয়েন্দা বিভাগের কর্তা ছিলেন। তেহরানের রাজাই শহরের জেলে এই অমানবিক ঘটনা ঘটেছে।

মহিলার আইনজীবী জানান, সাজা প্রাপ্ত মহিলার নাম জাহরা ইস্মাইলি ছিল। মহিলার দুটি সন্তান আছে। মহিলার স্বামী ওই মহিলা এবং তাঁর বাচ্চাদের মারধর করত। আর সেই অত্যাচার সহ্য করতে করতে অবশেষে মহিলা ওই স্বামীকে খুন করে দেয়। ইরানের আইন শক্ত হওয়ার কারণে মহিলাকে ফাঁসির সাজা দেওয়া হয়।

ইরানের প্রশাসন ওই মহিলাকে যেনতেন প্রকারে ফাঁসি দিতে চেয়েছিল। পুত্র হারা মাকে (জাহরার শাশুড়ি) বিচার পাইয়ে দেওয়ার জন্য বদ্ধপরিকর ছিল প্রশাসন। মহিলার আইনজীবী জানান, এর আগে এই জেলে ১৬ জনকে ফাঁসি দেওয়া হয়েছিল। আর সেই আতঙ্কেই ফাঁসির আগে মৃত্যু হয় মহিলার।

আইনজীবী জানান, প্রশাসন মানবতা ভুলে মৃত মহিলার হাত পা বেঁধে তাঁর মৃতদেহকে একটি টুলের উপর বসিয়ে গলায় ফাঁসির দড়ি পরিয়ে দেয়। এরপর টুলটি লাথি মেরে ফেলে দেওয়া হয় আর মহিলার দেহ ফাঁসি কাঠে ঝুলতে থাকে।

Back to top button