বঙ্গহোম পেজ

মদন থেকে তাপস, লালু থেকে জয়া- জেলে থাকলেই যত রোগ! উঠছে প্রশ্ন

 

বাংলা hunt ডেস্ক: মদন মিত্র থেকে তাপস পাল। লালুপ্রসাদ যাদব থেকে জয়ললিতা বা শশীকলা। জেলে গেলেই যত রোগ। জেলে থাকলেই যত বুক ধরপর। রাজনীতিবিদদের অনেকের ক্ষেত্রেই দেখা যায় , গ্রেন্তারি বা শাস্তির ধাক্কাটা রাজনীতিক নিতে পারছেন ন৷ তাঁদের শরীর খারাপ হয়ে যাচ্ছে৷ তবে লালুর ক্ষেত্রে অবশ্য ঘটনাটা একটু আলাদা৷ কারণ , বিরসা মুন্ডা জেলে থাকার সময় তাঁর শরীর খারাপ হয়৷ তাঁকে রাঁচি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতলে ভর্তি করা হয়৷ সেখানকার চিকিত্সকদের পরামর্শেই তাঁকে দিল্লির এইমসে এনে চিকিত্সা করা হয়েছে৷

কিন্তু ঝাড়খণ্ডে তো আর আরজেডি বা কংগ্রেসের সরকার নেই, দিল্লিতেও নয়৷ তাই গুরুতর অসুস্থ লালুর হাসপাতালে যাওয়া নিয়ে কোনও প্রশ্ন থাকতে পারে না৷ তা ছাড়া এইমসের চিকিত্সকরাও জানান , তাঁদের চিকিত্সায় লালু আগের থেকে ভালো আছেন৷ ফলে তাঁর স্বাস্থ্য খারাপ হওয়া নিয়ে কোনও প্রশ্ন নেই৷’প্রশ্নটা আসলে সাধারণ ভাবে রাজনীতিকদের সম্পর্কে ওঠে৷ তবে শুধু তাঁরাই নন , অনেক বিত্তবান অভিযুক্তই এই তালিকায় আছেন৷ কেউ কেউ আদালতের নির্দেশে বিশেষ ব্যবস্থায় থাকতে পান৷ উত্তরপ্রদেশের এক বহুচর্চিত শিল্পপতির ক্ষেত্রেই এটা হয়েছে৷

এমনকী চিটফান্ডে অভিযুক্ত বেশ কয়েক জনও শরীর খারাপের জন্য গ্রেপ্তার হওয়ার পর হাসপাতালে অনেক দিন কাটিয়েছেন৷ দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্ত পশ্চিমবঙ্গের এক সাজাপ্রান্তও হাসপাতালে দীর্ঘদিন কাটিয়েছেন৷ রাজ্যের বেশ কিছু রাজনীতকের ক্ষেত্রেও এটা সত্যি৷ তাঁদের সঙ্গে দেখা করতে গেলে অবশ্য আদালতের অনুমতি নিতে হয়৷

Leave a Reply

Check Also

Close
Close
Close