বিদেশহোম পেজ

ভোটের আবহের মাঝে বাংলাদেশে তিন হিন্দু পরিবারের বাড়িতে আগুন

বাংলা hunt ডেস্ক : ভোটের আগে ফের হিংসা বাংলাদেশে।শুক্রবার সেখানে তিনটি বাড়িতে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে।উত্তরের জেলার ঠাকুরগাঁও গ্রামে জনৈক আনন্দ বর্মনের বাড়িতে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে দশটা নাগাদ আগুন দেওয়া হয়‌।

NEWS : https://www.banglahunt.com/bjp-vs-tmc-bengal-2/

 

তিন তালাক বিল পাস হতে মুসলিম মহিলা ভোট বিজেপি দিকে টানতে তৈরি হয়ছে বিজেপি

বাড়ির মালিক একে পরিকল্পিত বললেও দমকলের তরফে অনুমান ক‍রা হচ্ছে সিগারেটের আগুন থেকে এমনটা হয়েছে।এখানেই শেষ নয়, গত শুক্রবার সদর উপজেলার জগন্নাথপুর ইউনিয়নের সিংগিয়া শাহাপু্র গ্রামের কৃষ্ণ ঘোষ এবং চারদিন পর মধ্য ঝাড়গাঁও গ্রামের যাত্রু বর্মনের বাড়িতে একই রকম আগুন দেওয়া হয়।সে সময় খবর পেয়ে অত্যন্ত তৎপরতার সাথে দমকল বাহিনী আগুন নিয়ন্ত্রনে আনলেও ততক্ষনে বাড়ি দুটি পুরো ছাই হয়ে যায়।

দমকল আধিকারিকের তরফে জানানো হয়েছে ক্ষতির পরিমান দুই লক্ষ।এদিন ক্ষতি গ্রস্ত দের মধ্যে একজন আনন্দ বর্মনের কথা পাওয়া গেছে এক বৃহত্তর বিতর্কের ইন্ধন।

‘দূর্গাপুজোর অনুমতি কেন দেয় না দিদি, মহরমের ক্ষত্রে কেন তা দেওয়া হয়’ ঃ কানহাইয়া কুমার

তার বক্তব্য যেদিন আগুন লাগে সেদিন বাড়ির আশপাশে পেট্রোলের গন্ধ পান তিনি।তার মতে পরিকল্পনা মাফিক এই কাজ করছে কেউ।কারন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে হিন্দুরা যাতে ভোট দিতে না পারে তাই এমন আতঙ্কের আবহ সৃষ্টি করছে কেউ এমনটাই দাবি তার।

এদিকে এই ঘটনাকে “জাতির জন্য কলঙ্কজনক” বলে বর্নিত করেছেন এলিট।ফোর্স র‍্যাব মহাপরিচালক বেনজির আহমেদ।তার বক্তব্য অনুযায়ী এই দেশ সবার।১৯৭১ সালে সব সম্প্রদায়ের মানুষে মিলে এদেশ স্বাধীন করেছিল।এ দেশকে আমরা সামনে নিয়ে যাচ্ছি সরকারের নেতৃত্বে।

নতুন বছর থেকে গরিবদের একাউন্টে প্রতি মাসে টাকা দেবে মোদী সরকার!

অন‍্যদিকে আখানগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম এই ঘটনায় পুলিশি হস্তক্ষেপের দাবি করেছেন।রোহিয়া থানার ওসি প্রদীপ কুমার রায় এই ঘটনার পিছনে কাদের হাত রয়েছে তা অনুসন্ধানের আশ্বাস দিয়েছেন।

এরই ক্ষতি গ্রস্তদের মধ্যে একজন কৃষ্ণ ঘোষের হাতে র‍্যাবের তৈরী বাড়ির চাবি তুলে দেওয়া হয়েছে।গত ২১ শে ডিসেম্বর কৃষ্ণ ঘোষের বাড়িতে আগুন দেওয়া হয় ইতিমধ্যে তিনি ওই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে বি এন পি নেতা মোস্তাফিজুর রহমান লিটন সহ দশজনের বিরুদ্ধে সদর থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

 

বাংলার দৈনিক সংবাদ মাধ্যম প্রকাশিত খবর থেকে এই তথ্য টা নেওয়া হয়েছে কিন্তু কেন আগুন লাগানো হলো তার তদন্ত করছে পুলিশ আধিকারিকরা কিন্তু এই ঘটনার সাথে কোন ধর্মীয় ব্যাপার জড়িয়ে আছে কিনা তা এখনও সঠিকভাবে বলা যাচ্ছে না। কিন্তু যেভাবে তিনটে বাড়ির পরিবার ধ্বংস হয়ে গেল তার জন্য কোন রাজনৈতিক অভিসন্ধি আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

আমরা কোন ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত না দিয়ে খবরটি প্রকাশ করলাম।

VIDEO :

Leave a Reply

Close
Close